বর্ষায় ক্ষতির আশঙ্কায় ভুগছে চাষিরা, উদাসীন প্রশাসন

128

চোপড়া: চোপড়া ব্লকের মাঝিয়ালি গ্রাম পঞ্চায়েতের ৩ নম্বর হাঁসখারি এলাকায় বর্ষায় আবাদি জমি তলিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় উদ্বিগ্ন স্থানীয় চাষিরা। গতবছর বর্ষায় গ্রামের রাস্তার কালভাটটি ভাঙনের কবলে তলিয়ে গিয়েছে। ফলে এলাকায় অন্তত ২০ বিঘা আবাদি জমিজুড়ে কার্যত খাল তৈরি হয়েছে।

জানা গিয়েছে, গতবছর এলাকার প্রতিবেশী কয়েকটি গ্রামের জল এই গ্রামবাসীদের চাষের জমি দিয়ে গড়িয়ে রাতারাতি অন্তত ১০ ফুট গভীর ৩০ ফুট চওড়া প্রায় ৫০০ মিটার দৈর্ঘ্যের একটি আস্ত খাল তৈরি হয়। তলিয়ে যায় যাতায়াতের কালভাটটিও। চা বাগান ও দ্বিফসলি জমি খালে পরিণত হওয়ায় চাষিদের মাথায় হাত পড়েছে। বিষয়টি পঞ্চায়েত ও প্রশাসনের নজরে এনেও কাজ হয়নি বলে অভিযোগ। এবার বর্ষায় আরও বেশি এলাকাজুড়ে ভাঙন ও চাষের জমির ক্ষতির আশঙ্কা করছেন তারা। হাঁসখারি এলাকার গ্রামবাসীদের সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রতিবার বর্ষায় প্রতিবেশী কয়েকটি গ্রামের জল এই কালভাটের নীচ দিয়ে অন্য একটি খালে গিয়ে পড়ে। এবার বর্ষা শুরুর আগে পঞ্চায়েত ও প্রশাসনের তরফে কোনরকম উদ্যোগ না নেওয়া হলে ফের বড় ক্ষতির আশঙ্কা করছেন প্রত্যেকে।

- Advertisement -

এলাকার বাসিন্দা তথা পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ আসমাতারা বেগম বলেন, ‘গতবার বর্ষার জলে গ্রামের আবাদি জমির উপর একটি খাল তৈরি হয়। সেটি স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে ভরাটের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু সম্প্রতি মঝিয়ালি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান উপপ্রধানের ইস্তফা সংক্রান্ত সমস্যায় কাজ আটকে পড়েছে।‘