তালা মেরে আধিকারিকদের আটকে রেখে সমবায় সমিতিতে বিক্ষোভ কৃষকদের

227

বর্ধমান: সহায়ক মূল্যে ধান বিক্রি করতে না পেরে সমবায় সমিতির অফিসে তালা মেরে বিক্ষোভ দেখালেন কৃষকরা। মঙ্গলবার পূর্ব বর্ধমানের আউসগ্রাম ১ ব্লকের বিল্বগ্রাম সমবায় সমিতির অফিসে তালা লাগিয়ে সমবায় সমিতির ম্যানেজার, সম্পাদক ও দুই কর্মীকে আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখানো হয়।

বিল্বগ্রাম সমবায় কৃষি উন্নয়ন সমিতিতে নথিভুক্ত রয়েছেন ৩৫২ জন কৃষক। অভিযোগ, তাঁদের মধ্যে মাত্র ২০ জনের ধান কেনা হবে বলে ঘোষণা করা হয় সমবায় সমিতির তরফে। এই ঘোষণা নিয়ে এলাকার কৃষক মহলে ক্ষোভ ছড়ায়। কৃষক অসফার রহমান, সিদ্ধেশ্বর পালের মতো কৃষকরা জানান, সহায়ক মূল্যে কৃষকদের ধান কেনা নিয়ে নানা অনিয়ম করছে সমবায় সমিতি। কৃষকরা সমবায় সমিতিতে ধান বিক্রি করতে এসে বারবার ফিরে যাচ্ছেন। এদিনও বিল্বগ্রাম সমবায় সমিতিতে সহায়ক মূল্যে ধান বিক্রি করতে আসেন এলাকার বহু কৃষক। তাঁরা সমবায় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে জানতে পারেন সমবায় সমিতিতে নথিভুক্ত সকল কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনা হবে না। শুধুমাত্র কুড়ি জন কৃষকের কাছ থেকে ধান নেওয়া হবে।

- Advertisement -

সিদ্ধেশ্বরবাবু বলেন, ‘কোন কুড়ি জন কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনা হবে তার তালিকাও প্রকাশ্যে আনতে চায়নি সমবায় সমিতি। সেইকারণে তালিকা তৈরিতে অনিয়ম হয়েছে বলে মনে হচ্ছে।’ এরপরই এদিন ক্ষুব্ধ কৃষকরা সমবায় সমিতির ম্যানেজার পলাশ ভট্টাচার্য সহ দুই কর্মী ও সম্পাদককে ঘরে বন্ধ করে তালা দিয়ে দেন। আরও এক কৃষক তরুণ ঘোষ জানান, ভোট ঘোষণা হয়ে গেলে ধান কেনা নিয়ে সমস্যা আরও বাড়বে। তাই এখনই এর প্রতিকার করতে হবে। এই সিদ্ধান্তের কথা তাঁরা প্রশাসনিক কর্তাদের জানিয়ে দিয়েছেন। প্রশাসনের আশ্বাস মতো কাজ না হলে ফের আন্দোলন শুরু হবে বলে কৃষকরা এদিন হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভ চলার পর বিডিও অরিন্দম মুখোপাধ্যায় ও আউসগ্রাম থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। প্রশাসনের কর্তারা দাবি মেটানোর আশ্বাস দিলে সমবায় অফিসের তালা খুলে দেন কৃষকরা। এই বিষয়ে বিডিও জানিয়েছেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। সব কৃষক যাতে ধান বিক্রির সুযোগ পান তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।