আর্থিক অনটনের মধ্যে চাষির ছেলে পলাশ উচ্চ মাধ্যমিকে সম্ভাব্য নবম, অধ্যাপক হওয়ার স্বপ্ন

320

দীপঙ্কর মিত্র, রায়গঞ্জ: রাজ্যের মধ্যে সম্ভাব্য নবম স্থান অধিকার করল উত্তর দিনাজপুর জেলার মালঞ্চা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র পলাশ রায়। তার প্রাপ্ত নম্বর ৪৯১। সে মালঞ্চা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র। তার সাফল্যে পরিবার সহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকারা খুশি। ভালো নম্বর পাওয়া ছাড়াও দারিদ্রতার সঙ্গে লড়াই করে নবম স্থান অধিকার করায় উচ্চসিত সকলে। পরিবারের আর্থিক অনটনের মধ্যেও ভুগোল নিয়ে পড়াশোনা চালিয়ে ভবিষ্যতে অধ্যাপক হতে চায় পলাশ পলাশ রায়।

পরিবার সূত্রে খবর, পলাশ বাবা-মায়ের সঙ্গে মাঝেমধ্যে মাঠে কাজ করতে যায়। তার মাঝেই পড়াশোনা চালিয়েছে পলাশ। রায়গঞ্জ ব্লকের ছাতিয়ান মালঞ্চা গ্রামের বাসিন্দা সুভাষ রায় ও কৃষ্ণা রায় তিন ছেলে মেয়েকে নিয়ে কোনও রকমে সংসার চালান। পলাশের এক বোন নন্দিনী রায় দশম শ্রেণির ছাত্রী এবং আরেক বোন পদ্মিনী রায় সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। নিজের পড়াশুনার খরচ জোগানোর পাশাপাশি দুই বোনের খরচ জোগানোর জন্য পলাশকে চাষের জমিতে কাজ করতে যেতে হয়।

- Advertisement -

পলাশের প্রাপ্ত মোট ৪৯১ এর মধ্যে বাংলায় পেয়েছে ৯৬, ইংরেজিতে ৯৬, ভূগোলে ১০০, দর্শনে ৯৮, এডুকেশনে ১০০, কম্পিউটারে ৯৯ করে নম্বর পেয়েছে। মেধাতালিকা প্রকাশ না হওয়ায় একটু খারাপ লাগলেও তার এই ফলাফলে খুশি সে।

পলাশ জানায়,বাবা-মায়ের পাশাপাশি বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকারা যথেষ্ট সহযোগিতা করেছেন।তারা পাশে না থাকলে এতদূর এগোতে পারত না। তবে প্রতিটি পরীক্ষা দিতে পারলে আরও ভালো লাগত, দাবি পলাশের। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অজয় রায় বলেন, পলাশ আমাদের গর্ব। তার এই সাফল্যে আমরা খুশি। বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা তাকে দেখে অনুপ্রাণিত হবে।