ফসল উৎপাদনে ‘মালচিং’ পদ্ধতি প্রয়োগে সাফল্য, খুশি কৃষকরা

113

ফুলবাড়ি: সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে কৃষিকাজে ব্যবহৃত বীজ, রাসায়নিক সার সহ বিভিন্ন জিনিসের দাম বেড়েছে। চাষের ক্ষেত্রে প্রচুর টাকা খরচ করেও অনেক সময় কৃষকরা লাভের মুখ দেখতে পান না। এবার আধুনিক পদ্ধতিতে সবজি চাষে উদ্যোগী হলেন মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের ফুলবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের রাঙ্গাপানি বালাসি এলাকার বহু কৃষক। এই পদ্ধতিকে বলা হচ্ছে মালচিং পদ্ধতি। কুড়ি এমএম মালচিং বীজ ব্যবহার করে এই পদ্ধতি অনুসরণ করে একই বেড থেকে তিনটি ফসল কৃষকরা তুলতে পারবেন বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

- Advertisement -

মালচিং পদ্ধতিতে শশা, বেগুন, টমেটো, লঙ্কা সহ বিভিন্ন ধরনের সবজি চাষ করছেন কৃষকরা। কৃষি দপ্তরের তরফেও এই পদ্ধতিতে চাষাবাদ করতে কৃষকদের উৎসাহিত করা হচ্ছে। এলাকার কৃষক শংকর রায় এবছর প্রথম মালচিং পদ্ধতিতে তাঁর পাঁচ বিঘা জমিতে শশা, বেগুন, টমেটো ও লঙ্কা চাষ করেছেন। চাষ করে সাফল্যও এসেছে। তিনি জানান, কৃষি দপ্তরের আধিকারিকদের পরামর্শে এবছরই প্রথম মালচিং পদ্ধতিতে সবজি চাষ করেছেন তিনি। সবজির ভালো বাজার পেলে অবশ্যই লাভের মুখ দেখা যাবে। এই বিষয়ে মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের সহ কৃষি অধিকর্তা ড: মলয়কুমার মণ্ডল জানান, বর্তমানে ব্লকের বিভিন্ন জায়গায় মালচিং পদ্ধতিতে সবজি চাষ চলছে। এক্ষেত্রে অনেক কৃষককে আতমা প্রকল্প থেকে সহায়তা করা হচ্ছে।