ইদ উল আযহার উপহার দিয়ে মেয়ের বাড়ি থেকে ফেরার পথে বাবার মৃত্যু

148
প্রতীকী ছবি

বর্ধমান: মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে ইদ উল আযহার উপহার দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল বাবার। বরাত জোরে প্রাণে বেঁচে গিয়েছে ছেলে। শুক্রবার পূর্ব বর্ধমানের মেমারি সাতগেছিয়া রোডে মেমারির হাসপাতাল মোড় এলাকার ঘটনা। খবর পেয়ে, মেমারি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। জখম ব্যক্তিকে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত ব্যক্তির নাম কালাম মণ্ডল (৬০)। জখম হয়েছে তার ছেলে শাহিদ মণ্ডল। মেমারি থানার বহেলা গ্রামে তাদের বাড়ি। মৃত ব্যক্তির বাবা হাসেম মণ্ডল জানান, ‘তাঁর নাতনি অর্থাৎ কালামের মেয়ের সম্প্রতি বিয়ে হয়েছে মন্তেশ্বর থানার কুশুমগ্রামে। কালাম ও তার ছেলে শাহিদ একটি বাইকে চড়ে শুক্রবার নাতনির শ্বশুর বাড়িতে ইদ উল আযহা পরবের উপহার সামগ্রী পৌঁছে দিতে যায়। দুপুরে সেখান থেকে বাইকে চড়ে তারা নিজের বাড়ি ফিরছিল। পথে মেমারির হাসপাতাল মোড়ের কাছে তাদের বাইকের সঙ্গে একটি ট্র্যাক্টরের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

- Advertisement -

হাসেম মণ্ডল বলেন, দুর্ঘটনাতে তার ছেলে কালামের মৃত্যু হয়। প্রাণে বেঁচে গেলেও মারাত্মক জখম হয়েছে নাতি শাহিদ মন্ডল। মর্মান্তিক এই ঘটনার জেরে মণ্ডল পরিবারে ইদ উল আযহার পরবের উচ্ছাস ম্লান হয়ে গিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাইক চালাচ্ছিল শাহিদ। পিছনে বসেছিলেন তার বাবা কালাম। বাইক আরোহীদের সামনে ছিল একটি চার চাকা গাড়ি। বাইক চালক ওই চার চাকা গাড়িটিকে ওভারটেক করে যেতে গেলে বিপত্তি ঘটে যায়। বিপরীত দিক থেকে আসা ট্র্যাক্টরের সঙ্গে বাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। শাহিদ বাইক থেকে রাস্তার এক পাশে ছিটকে পড়ে। তার অপর পাশে ট্র্যাক্টের চাকার নিচে পড়ে পিষ্ট হন কালাম মণ্ডল। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। চালক সহ দুর্ঘটনাগ্রস্ত ট্র্যাক্টর ও বাইক আটক করে পুলিশ দুর্ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।