ব্লাঁর সঙ্গে দর্শনের লড়াই ফেরান্দোর

পানাজি : বুধবার ভারতীয় সময় রাত সাড়ে দশটা। আরব সাগরের তীরে জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামে ইতিহাস তৈরি করবে এফসি গোয়া। ভারতের প্রথম ক্লাব হিসেবে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নামবে হুয়ান ফেরান্দোর দল। প্রতিপক্ষ ফ্রান্সের তারকা ফুটবলার ও কোচ লরা ব্লাঁর আল রাইহান। তবে কাতারের দলটির বিরুদ্ধে নিজের দর্শন বদলাবেন না বলেই জানিয়েছেন ফেরান্দো। অন্যদিকে, বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় এএফসি কাপের মূলপর্বে যাওয়ার লড়াইয়ে নামছে বেঙ্গালুরু এফসি। প্রথম ম্যাচে তাঁদের প্রতিপক্ষ নেপালের ত্রিভুবন আর্মি ক্লাব।

চলতি মরশুমে একটুর জন্য আইএসএল ফাইনাল খেলা হয়নি গোয়ার। সেমিফাইনালের দুই পর্বে মুম্বই সিটি এফসিকে আটকে দিলেও পেনাল্টি শুটআউটে হার মানে গতবারের লিগ শিল্ড চ্যাম্পিয়নরা। সেই হারের ধাক্কা সামলাতে ফুটবলারদের দিন পনেরো ছুটি দিয়েছিলেন ফেরান্দো। এশিয়া মহাদেশের সবচেয়ে বড় ক্লাব টুর্নামেন্টে খেলার সুযোগ পেয়ে উচ্ছ্বসিত এই স্প্যানিশ কোচ। তাঁর কথায়, আমরা উত্তেজিত। এটা উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ আর কোপা লিবার্তাদোরসের মতো একটা টুর্নামেন্ট। অনেকেই প্রথমবার এই পর্যায়ে খেলবে। অনেকেরই স্বপ্নপূরণ হবে।

- Advertisement -

গত মরশুমে কাতার লিগের রানার্স আল রাইহানের বিরুদ্ধে লড়াইটা সহজ হবে না গোয়ার। দলের কোচ ১৯৯৮ বিশ্বকাপজয়ী ফ্রান্সের ডিফেন্ডার লরা ব্লাঁ। খেলা ছাড়ার পর ফ্রান্সের জাতীয় দল ও প্যারিস সাঁ জাঁর মতো ক্লাবের কোচ ছিলেন ব্লাঁ। অভিজ্ঞ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে নিজের ফুটবল দর্শনেই ভরসা করছেন ফেরান্দো। বলছেন, আমরা পাসিং ফুটবল খেলে আসছি। সেই স্ট্র‌্যাটেজি থেকে সরার প্রশ্ন নেই। গোল করার জন্য কাতারের দলটির ভরসা আফ্রিকান কাপ অফ নেশনস চ্যাম্পিয়ন আলজিরিয়ার সদস্য ইয়াসিন ব্রাহিমি। তাঁকে আটকানো বড় চ্যালেঞ্জ হতে চলেছে গোয়া ডিফেন্সের।

আইএসএলের মতো এখানে ইগর অ্যাঙ্গুলো ও আলবার্তো নগুয়েরাকে পাবেন না ফেরান্দো। তবে যারা আছে, তাদের নিয়ে বাজিমাত করাই লক্ষ্য। তাঁর কথায়, ইগর অসাধারণ। দলে থাকলে খুশি হতাম। নগুয়েরার না থাকাটাও বড় ধাক্কা। তবে আমাদের দলে অনেক দুর্দান্ত ফুটবলার আছে। তাই এখন সামনে তাকানোর ওপর জোর দিচ্ছি। দেশের ফুটবল ইতিহাসে এই ম্যাচের গুরুত্ব কতটা, জানেন ফেরান্দো। বললেন, শুধু এফসি গোয়া নয়, ভারতের জন্য এটা একটা বড় মুহূর্ত। তাই আমরা গোটা দেশকে গর্বিত করতে চাই। দলের সদস্যদের প্রতি তাঁর বার্তা, এই সুযোগ কাজে লাগাও।

গোয়ার গ্রুপে আল রাইহান ছাড়াও সংযুক্ত আরব আমিরশাহির আল ওয়াহাদা এবং ইরানের পার্সিপোলিসের মতো শক্তিশালী ক্লাব রয়েছে। এমন অবস্থায় অ্যাঙ্গুলোর অনুপস্থিতিতে প্রথম থেকে খেলতে পারেন ঈশান পন্ডিতা। পরিবর্ত হিসেবে নেমে আইএসএলে চার গোল করেন এই ভারতীয় ফরোয়ার্ড। সেই পারফরমেন্সের জোরে জাতীয় দলের জার্সিও পেয়েছেন। এবার বড় মঞ্চে নিজেকে প্রমাণ করতে মুখিয়ে আছেন তিনি।