৯৮ শতাংশ নির্ভুল বাঙালি বিজ্ঞানীর ফেলুদা কিট

নয়াদিল্লি ওয়াশিংটন : করোনা ভাইরাস সংক্রমণ শনাক্তকরণে পথ দেখালেন বাঙালি বিজ্ঞানীরা। তাঁদের তৈরি ফেলুদা পেপার স্ট্রিপ দিয়ে কারও করোনা হয়েছে কিনা, তা ৯৮ শতাংশ ক্ষেত্রে নির্ভুলভাবে বলে দেওয়া যাচ্ছে বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের অধীন ইনস্টিটিউট অফ জেনোমিক্স এবং ইন্টিগ্রেটিভ বায়োলজির পরীক্ষাগারে দুহাজার কোভিড রোগীর সংক্রমণ শনাক্ত করতে ওই পেপার স্ট্রিপ টেস্ট কিট ব্যবহার করে অভূতপূর্ব সাফল্য মিলেছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন জানিয়েছেন, করোনা ধরতে ফেলুদা পেপার স্ট্রিপ ৯৮ শতাংশ ক্ষেত্রে সফল। কেন্দ্রীয় ড্রাগ কন্ট্রোল ও স্বাস্থ্যমন্ত্রকের অনুমোদন নিয়ে খুব শীঘ্রই এই টেস্ট কিটের বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হবে। আগামী ১০ দিনের মধ্যে ফেলুদা পেপার স্ট্রিপের ব্যবহারও শুরু হয়ে যাবে বলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান। এই পরীক্ষার খরচ খুব কম বলেও জানা গিয়েছে। দুই বাঙালি বিজ্ঞানী দেবজ্যোতি চক্রবর্তী ও সৌভিক মাইতি জানিয়েছেন, এফএনসিএএস৯ এডিটর-লিমিটেড ইউনিফর্ম ডেটেকশন অ্যাসে, সংক্ষেপে ফেলুদা পেপার স্ট্রিপ নির্মাণে ক্রিসপার জিন এডিটিং প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। এই পদ্ধতিতে রোগীর থেকে নেওয়া নমুনার মধ্যে করোনার জিন আছে কিনা তা সহজেই চিহ্নিত করতে পারে এবং পেপার স্ট্রিপের রঙের পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে তাঁর ইঙ্গিত দেয়।

- Advertisement -

অন্যদিকে আমেরিকায় ঘরে বসে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ পরীক্ষার উপযোগী একটি সেল্ফ-টেস্টিং কিট ব্যবহারের অনুমোদন করেছে সেখানকার ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ)। ওই কিটটি বানিয়েছে লুসিরা হেলথ নামে একটি বেসরকারি সংস্থা। এফডিএ জানিয়েছে, ১৪ থেকে শুরু করে সব বয়সের মানুষের ন্যাসাল সোয়াব পরীক্ষা করে করোনা হয়েছে কিনা বলে দিতে পারবে ওই সেল্ফ-টেস্টিং কিট। এর জন্য মিনিট ৩০ সময় লাগবে। তবে কিটটি একবারের বেশি ব্যবহার করা যাবে না। এফডিএ-র কমিশনার স্টিফেন হান বলেছেন, বাড়ি গিয়ে কোভিড পরীক্ষার অনুমোদন আগেই দেওয়া হয়েছে আমেরিকায়। কিন্তু এ বারই প্রথম ঘরে বসেই কেউ সেই পরীক্ষা করে নিতে পারবেন। আর তার ফলাফলও জেনে নিতে পারবেন আধ ঘণ্টার মধ্যে। আমেরিকায় সংক্রমণ বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে ওই টেস্টিং কিট কাজে লাগবে বলেই মনে করা হচ্ছে।