বিজেপি এজেন্টের বৌমাকে কানধরে উঠবস করাল তৃণমূল, ভাইরাল ভিডিও

209

বর্ধমান: প্রকাশ্যে বিজেপি এজেন্টের বাড়ির বৌমাকে কান ধরে উঠবস করালেন তৃণমূল নেত্রী মিতা দাস। পাশে দাঁড়িয়ে মায়ের উপরে চলা নির্যাতন প্রত্যক্ষ করে শুধু চোখের জল ফেলে গেল মেয়ে। বর্ধমান শহরের উপকন্ঠে হ্যাচারি রোড ক্যানেলপাড় বাজার বাজার এলাকায় ঘটে যাওয়া এমন এক ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই নিন্দার ঝড় উঠেছে রাজনৈতিক মহলে। যদিও মিতা দাসের সাফাই, তিনি কিছু করেননি। এলাকার সাধারণ মানুষ এই কাণ্ড ঘটিয়েছে। এদিকে বিজেপির দাবি, ভোটের ফল ঘোষণার পর থেকে তৃণমূলের নেতা-নেত্রীরা যে তালিবানি কায়দায় বিরোধীদের উপরে সন্ত্রাস চালাচ্ছে এই ঘটনা তারই প্রমাণ দিচ্ছে।

নেট দুনিয়ায় যে ভিডিও ভাইরাল হয়েছে তাতে স্পষ্ট, বাজারের মধ্যে এক মহিলা কানধরে উঠবস করছেন। পাশে বাজারের থলি হাতে দাঁড়িয়ে আছেন তাঁর মেয়ে। উলটোদিকে, তৃণমূল নেত্রী মিতা দাস। কানধরে ওঠবস করার সময় কাঁদছেন ওই মহিলা। মহিলার কান্না দেখেও দমে যাননি তৃণমূল নেত্রী। ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেই স্পষ্ট হয় ওই মহিলার ভাসুর প্রশান্তবাবু বর্ধমান উত্তরবিধানসভার ৩১ নম্বর জেলা পরিষদের একটি বুথের এজেন্ট ছিলেন।

- Advertisement -

তৃণমূল নেত্রী মিতা দাস সাফাই দিয়ে বলেন, ‘আমি কিছু করিনি। এলাকার সাধারণ মানুষই এই কাণ্ড করেছে। ঘটনাচক্রে আমি শুধু ওই জায়গায় উপস্থিত ছিলাম মাত্র।’ যদিও বিজেপি জেলা সাধারণ সম্পাদক শ্যামল রায় বলেন, ‘তৃণমূল জয়ী হওয়াতে এখন এই পশ্চিমবঙ্গে ১৯৪৬ সালের অবস্থা ফিরে এসেছে।’ শ্যামল বাবু দাবি করেন, ওই মহিলার ভাসুর বিজেপির বুথ এজেন্ট ছিলেন। তাই মিতা রায় মহিলাকে বাজারের মধ্যে মেয়ের সামনে কানধরে উঠবস করিয়েছেন। শ্যামলবাবু জানান, এই তালিবানি শাস্তির বিষয়ে পুলিশকে জানানো হলেও এখনও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি পুলিশের তরফে।

বর্ধমান উত্তরের তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক নিশীথ মালিক ঘটনা প্রসঙ্গে বলেন, ‘এই রকম ঘটনা আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখতে হবে।’ তাঁর দাবি তৃণমূল কংগ্রেসের কোন নেতা কর্মী এমন ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে না।