নয়াদিল্লি, ৪ জুলাই : লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের ভরাডুবির পরই কংগ্রেসের সভাপতির দায়িত্ব ছাড়তে চেয়েছিলেন রাহুল গান্ধি। মাসখানেকের জল্পনা কল্পনার পর বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ইস্তফার কথা ঘোষণা করেছেন রাহুল। তারপর থেকেই কংগ্রেসের ভবিষ্যত্ কী হবে তা নিয়ে শুরু হয়ে গিয়েছে। বৃহস্পতিবার রাহুলের ইস্তফা প্রসঙ্গে দাদার পাশেই দাঁড়ালেন বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধি। টুইটারে প্রিয়াঙ্কা লিখেছেন,  ‘তুমি যা করে দেখিয়েছো, খুব কম মানুষেরই সেটা করার সাহস থাকে। তোমার সিদ্ধান্তের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা।’ বুধবার রাহুল ইস্তফা দিয়ে বলেন, দলকে নতুন করে গড়ে তোলার জন্য ‘কঠিন সিদ্ধান্ত’ নিতেই হবে। চারপাতার চিঠিতে তিনি বলেছেন, সভাপতি নির্বাচিত করার জন্য কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি কয়েকজনকে দায়িত্ব দিক। তাঁর পক্ষে নির্বাচনে অংশ নেওয়া ঠিক হবে না। দলের পরবর্তী প্রধান হওয়ার দৌড়ে দুই বর্ষীয়ান নেতা সুশীলকুমার শিন্ডে এবং মল্লিকার্জুন খাড়গেকে এগিয়ে রাখছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। ঘটনাচক্রে এই দু’জনই কংগ্রেসে দলিত মুখ। সেইসঙ্গে উভয় নেতাই গান্ধী পরিবারের আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত।