পাঁচ বছরে পনেরো হাজার বাংলাদেশিকে ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে: কেন্দ্র

683

নয়াদিল্লি: গত পাঁচ বছরে ১৫ হাজার বাংলাদেশি নাগরিককে ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ৮৩ হাজার ৮ জনকে ‘সন্দেহজনক ভোটার’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। যাদের বর্তমানে অসমের ফরেনারস ট্রাইবুনালে রাখা হয়েছে। রবিবার লোকসভায় এই পরিসংখ্যান দেওয়া হয় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে।

উল্লেখ্য, অসমে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি শুরু হওয়ার পর থেকেই কেন্দ্রের বিরোধিতা শুরু করেছিল বিরোধী দলগুলি। ভারতের নাগরিক নয়, এই কথা বলে মানুষদের ডিটেনশন ক্যাম্পে কেন পাঠানো হবে, তার প্রশ্ন তোলে বিরোধীরা। তারপরেই নাগরিকত্ব আইন পাশ হওয়ার পরে এই বিরোধ আরও কয়েক গুণ বেড়ে যায়। এ সবের মাঝেও ১৫ হাজার বাংলাদেশি নাগরিককে ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে বলে কেন্দ্রের দাবি। একটি লিখিত জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই জানান, গত ৫ বছরে ১৫ হাজার বাংলাদেশি নাগরিককে ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে ৮৩ হাজার ৮ জনকে ‘সন্দেহজনক ভোটার’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের অসমের ফরেনারস ট্রাইবুনালে রাখা হয়েছে। গত ৫ বছরে মোট ৮৬ হাজার ৭৫৬ জনকে বিদেশি বলে চিহ্নিত করা হয়েছে।

- Advertisement -

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই লিখিত জবাবে বলেন, “অসম সরকার কেন্দ্রকে জানিয়েছে, অসমের ফরেনারস ট্রাইবুনালে সন্দেহজনক ভোটার হিসেবে ৮৩ হাজার ৮ জনের মামলা বাকি রয়েছে। ২০১৫ সাল থেকে ২০২০ সালের জুন মাস পর্যন্ত অসমে মোট ৮৬ হাজার ৭৫৬ জনকে বিদেশি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।” এই ট্রাইবুনাল ভারতের মধ্যে একমাত্র অসমে কাজ করছে বলেই জানিয়েছে কেন্দ্র।