মথুরার মন্দিরে নমাজ, দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে এফআইআর করল যোগী পুলিশ

1512

লখনউ: দুই মুসলিম ব্যক্তির বিরুদ্ধে এফআইআর করল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। মথুরার এক মন্দিরের ভিতরে নমাজ পড়ার কারণে তাদের বিরুদ্ধে এফআইআর করা হয়েছে। ফয়জাল খান ও মহম্মদ চাঁদ গত ৩০ অক্টোবর মন্দিরের ভিতরে নমাজ পড়ায় ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৩এ,২৯৫ ও ৫০৫ ধারায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এই দুই ব্যক্তি কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে মথুরার নন্দ বাবা মন্দিরে নমাজ পড়েন। ফয়জাল খান ও মহম্মদ চাঁদ ছাড়াও আরও দুই ব্যক্তির নাম এফআইআর আছে। যারা নমাজ পড়ার ছবি তোলেন ও সামাজিক মাধ্যমে সেই ছবি ছড়িয়ে দেন।

এদিকে এই ঘটনার পর মন্দিরের পুরোহিত মন্দির চত্ত্বর পরিশুদ্ধ করার পর পুজো করেন। মন্দিরের ভিতরে নমাজ পড়ার ঘটনায় উত্তরপ্রদেশের শান্তি নষ্ট করার অভিযোগে উত্তরপ্রদেশ হিন্দু কমিউনিটি ছাড়াও কয়েকটি পুরোহিত সংগঠন সরব হয়েছে।

- Advertisement -

অযোধ্যা রাম মন্দিরের প্রধান পুরোহিত সত্যেন্দ্র দাস এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে ওই দুই ব্যক্তির কঠোর শাস্তির দাবি করেছেন। একই সঙ্গে তিনি বলেন, প্রত্যেকের এই ঘটনার বিষয়ে কথা বলা উচিত। এটা কোনও রাজনৈতিক বিষয় নয়, এটা ধর্মীয় বিষয়।’

পুরোহিত সত্যন্দ্র দাস ছাড়াও উত্তরপ্রদেশ বিধানসভার সদস্য শ্রীকান্ত শর্মাও এই ঘটনাকে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা প্ররোচিত করার প্রচেষ্টা বলে অভিহিত করেছেন। তিনি বলেছেন, কিছু মানুষ উত্তরপ্রদেশের পরিবেশ নষ্ট করার চেষ্টা করছে। আমরা যে পদ্ধতিতে পরিচালনা করছি তারা তা মানিয়ে নিতে পারছে না। তাই, তারা নানা রকম পদ্ধতিতে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা ছড়ানোর চেষ্টা করছে। উন্নতির কাজ না করে কংগ্রেস এবং বিএসপি সর্বদা সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করছে। কিন্তু, উত্তরপ্রদেশের বর্তমান সরকার তেমনটা নয়, কেউ যদি উত্তরপ্রদেশের শান্তি নষ্ট করার চেষ্টা করে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

এছাড়াও, উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী লক্ষ্মী নারায়ণ চৌধুরি জানান, ঘটনার বিষয়ে মথুরা জেলা পুলিশ সুপারকে জানানো হয়েছে। গোটা ঘটনার বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। পাশাপাশি কোনও রকম প্রতিকূল পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মন্দিরের চারপাশে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।