অবর বিদ্যালয় পরিদর্শকের দপ্তরে আগুন, পুড়ল নথি

168

ইসলামপুর: ইসলামপুর অবর বিদ্যালয় পরিদর্শকের দপ্তরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বৃহস্পতিবার এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ইসলামপুর হাসপাতাল পাড়ার ১০ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায়। দমকলের দু’টি ইঞ্জিনের তৎপরতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। যদিও আগুন লাগার কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। সেক্ষেত্রে তদন্ত শুরু করেছে দমকলকর্মীরা।

এদিন সকালে ওই দপ্তরের জানালা দিয়ে ধোঁয়া বের দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুহুর্তের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকা জুড়ে। কেন না, ঘটনাস্থলের পাশেই ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতাল এবং একদম গা ঘেঁষা ইসলামপুর বাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়। সেক্ষেত্রে আতঙ্ক আরও বাড়তে স্থানীয়দের মধ্যে। তড়িঘড়ি খবর দেওয়া হয় ইসলামপুর দমকল কেন্দ্রে। দুটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে দমকলের ইঞ্জিন পৌঁছায়। দমকল বাহিনীর প্রায় চার ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে কি কারণে আগুন লেগেছে তা এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট নয়।

- Advertisement -
অবর বিদ্যালয় পরিদর্শকের দপ্তরে আগুন, পুড়ল নথি| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India
বাচ্চাদের জন্য যে বই, জুতো পাঠানো হয়েছিল রাজ্য সরকারের তরফে সেগুলো নেভানো হচ্ছে।

এদিকে ঘটনার খবর চাউর হতেই ছুটে আসেন স্থানীয় ইসলামপুর মিডিল স্কুলের প্রধান শিক্ষক বাসুদেব মালাকা। তিনি জানান, এই নিয়ে দু’বার এই অফিসে আগুন লাগল। আমাদের বহু শিক্ষকের সমস্ত নথি এই অফিসেই থাকে। সেই নথি গুলি নষ্ট হয়ে গিয়েছে কিনা সেই নিয়ে বড় চিন্তায় রয়েছি। তিনি আরও বলেন, বাচ্চাদের জন্য যে বই, জুতো পাঠানো হয়েছিল রাজ্য সরকারের তরফে সেগুলো নষ্ট হয়ে গিয়েছে।

ইসলামপুর সার্কেলের ভারপ্রাপ্ত অবর বিদ্যালয় পরিদর্শক বেলাল হোসেন জানান, অগ্নিসংযোগের ঘটনায় দপ্তরে প্রচুর ক্ষতি হয়েছে। প্রচুর বই সহ পড়ুয়াদের জন্য মজুত করে রাখা জুতা পুড়ে গিয়েছে। এছাড়াও নষ্ট হয়েছে প্রচুর আসবাব পত্র। নষ্ট হয়েছে ফাইলপত্র। তবে এখনই ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ বলা মুশকিল।

ইসলামপুর দমকল কেন্দ্রের সাব অফিসার রবিউল ইসলাম বলেন, ‘দুটি ইঞ্জিন নিয়ে আসা হয়েছিল। আপাতত আগুন নিয়ন্ত্রণে। তবে, সঠিক কি কারণে আগুন লেগেছে তা এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট নয়।’