ধর্মের নামে বিভাজনের রাজনীতি কাম্য নয়: ফিরহাদ হাকিম   

705

উত্তরবঙ্গ সংবাদ ডিজিটাল ডেস্ক: সোমবার শিলিগুড়িতে পূর্ত দপ্তরের বাংলোয় সাংবাদিক সম্মেলন করেন রাজ্যের পূর্তমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। তৃণমূলের সাম্প্রতিক অবস্থা, লোকসভা ভোটে উত্তরবঙ্গে বিজেপির ভালো ফল, বিভাজন তথা ধর্ম নিয়ে রাজনীতি সহ একাধিক বিষয়ে এদিন মুখ খোলেন ফিরহাদ।

লোকসভা ভোটের নিরিখে উত্তরবঙ্গে তৃণমূলের অবস্থা খুব একটা ভালো নয়। এদিকে, এগিয়ে আসছে বিধানসভা নির্বাচন। এই পরিস্থিতিতে তৃণমূল কীভাবে ভোটে লড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে? এই প্রশ্নের উত্তরে এদিন ফিরহাদ জানান, লোকসভা ও বিধানসভা ভোটে পার্থক্য রয়েছে। লোকসভা ভোটের আগের পুলওয়ামা ও বালাকোট হামলা হয়েছিল। দেশের ওপর আঘাত আসতে পারে বলে প্রচার করা হয়েছিল। সেসময় লড়াইয়ের জন্য বিরোধীদের একত্রিত কোনও মুখ ছিল না। সেই ফায়দা তুলেছে বিজেপি। তার প্রভাব পড়েছে ভোটে।

- Advertisement -

ধর্ম নিয়ে রাজনীতির বা বিভাজনের রাজনীতিরও এদিন তীব্র সমালোচনা করেন ফিরহাদ। তিনি বলেন, ‘আমরা ভারতীয়রা যে যার ধর্ম আচরণ করি, ধর্মে বিশ্বাস করি। যাঁরা ধর্মের নামে রাজনীতি করছেন তাঁরা ধর্ম, দেশ, রাজনীতি-সব কিছুরই সবর্নাশ করছেন। ধর্ম বিভাজন শেখায় না। ধর্মে ধর্মে মারামারি, ভাগাভাগি কখনওই কাম্য নয়।’

অশোক ভট্টাচার্য় শিলিগুড়ির মেয়র হওয়ার পর রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে বহুবার আর্থিক বঞ্চনা, অসহযোগিতার অভিযোগ তুলেছেন, এমনকি ধরনাতেও বসেছিলেন। সেই প্রসঙ্গে ফিরহাদ এদিন বলেন, ‘রাজ্যের সর্বত্র উন্নয়নকে পাখির চোখ করেছে মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের নেতৃত্বাধীন সরকার। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে দলমত নির্বিশেষে বিভিন্ন পুরসভা ও পুরনিগমকে সাহায্য করা হয়েছে। অশোক ভট্টাচার্যের অসহযোগিতার অভিযোগ ভিত্তিহীন।’