হরষিত সিংহ, মালদা : আন্তর্জাতিক নারী দিবসে এক ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে থাকল মালদা টাউন স্টেশন। এদিন এই স্টেশন থেকেই উত্তরবঙ্গে প্রথম মহিলা পরিচালিত যাত্রীবাহী ট্রেনের সূচনা হল। শুধু চালক বা সহচালক নয়, রেলের টিকিট পরীক্ষক থেকে শুরু করে নিরাপত্তা কর্মী সকলেই মহিলা। রবিবার দুপুরে সবুজ পতাকা নেড়ে ট্রেনটির যাত্রা শুরু করেন ডিআরএম যতীন্দ্র কুমার। তিনি জানান, মালদা থেকে বর্ধমান পর্যন্ত এই ট্রেনটি সম্পূর্ণভাবে মহিলা কর্মীদের দ্বারা পরিচালিত। আগামী দিনে এই স্টেশন থেকে মহিলা পরিচালিত আরও ট্রেন চালু করা যায় কিনা, তা খতিয়ে দেখা হবে।

এই ট্রেনের চালক পিয়ালি রায়। সহচালক তিয়াশা দত্ত। টিকিট পরীক্ষকের দায়িত্বে রয়েছেন ঝুম্পা চাকি, কবিতা চক্রবর্তী এবং পাখি বাসকোর। গার্ড রঞ্জু ওরাওঁ। রেলের নিরাপত্তার জন্য য়ে আরপিএফ কর্মীরা রয়েছেন, তাঁরাও সকলে মহিলা। সর্বসাকুল্যে কর্মীর সংখ্যা ১১ জন। এই কর্মী নিয়ে ট্রেনটি মালদা টাউন স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করে বর্ধমানের রামপুরহাট স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করবে। তবে কাজে নিয়োগের আগে এই কর্মীদের সবদিক থেকেই প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। ট্রেনের পাইলট পিয়ালি রায় গত তিন বছর ধরে রেল বিভাগে কর্মরত। অন্যদিক, তিয়াশা দত্ত এক মাস আগে চাকরিতে যোগ দিয়েছেন। তাঁদেরকেও রেলের তরফে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -

মহিলা পরিচালিত এই ট্রেনের চালক পিয়ালি রায় বলেন, আজ নারী দিবসে আমরা মালদা টাউন স্টেশন থেকে মালদা-বর্ধমান প্যাসেঞ্জার ট্রেনটি রামপুরহাট পর্যন্ত নিয়ে যাচ্ছি। সমস্ত মহিলা পরিচালিত এই ট্রেন নিয়ে যেতে গর্ববোধ হচ্ছে। আজ প্রথম যাত্রীবাহী ট্রেন চালানোর অভিজ্ঞতা হবে। খুবই উত্তেজনা হচ্ছে। বর্তমান সমাজে মেয়েরা ছেলেদের থেকে কোনও অংশে কম নেই। মেয়েরাও সমস্ত সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে। আমাদের এই সুযোগ করে দেওয়ার জন্য রেল কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

পূর্ব রেলের মালদা ডিভিশনের ম্যানেজার যতীন্দ্র কুমার বলেন,  আন্তর্জাতিক মহিলা দিবস উদ্‌যাপন করতে মালদা ডিভিশনের নানা কার্যক্রম চলছে। তারই অঙ্গ হিসাবে আজ সম্পূর্ণ মহিলা পরিচালিত ৫৩৪১৮ মালদা-বর্ধমান প্যাসেঞ্জার ট্রেনটি রওনা দিয়েছে। ট্রেনটি ১১ জন মহিলা দ্বারা সঞ্চালন হচ্ছে। আমরা ভবিষ্যতে মহিলা কর্মী দ্বারা আরও ট্রেন চালাতে চাই। তবে কলকাতার মতো শহরে মহিলা কর্মীর সংখ্যা অনেক থাকলেও মালদা শহরে মহিলা কর্মীর সংখ্যা ততখানি নেই। যেমনভাবে মহিলা কর্মীর সংখ্যা বাড়বে তেমনভাবে ভবিষ্যতে আরও নানান কাজে নিয়োগ করা হবে।