শুক্রবার থেকে র‌্যাশনে বিনামূল্যে পাঁচ কেজি করে চাল: খাদ্যমন্ত্রী

417

বর্ধমান: গোটা রাজ্যে শুক্রবার থেকে র‌্যাশনে পাঁচ কেজি করে চাল বিনামূল্যে  দেওয়া শুরু হবে। বৃহস্পতিবার পূর্ব বর্ধমান জেলাশাসকের দপ্তরে প্রশাসনিক বৈঠকে যোগ দিয়ে এই কথা ঘোষণা করেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। একই সঙ্গে তিনি জানিয়ে দেন, র‌্যাশন দোকানে চাল নিতে আসা প্রত্যেক উপভোক্তাকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতেই  হবে। অশান্তি এড়াতে র‌্যাশন দোকানে সিভিক ভলান্টিয়ার রাখার কথাও এদিন তিনি জেলা প্রশাসনকে জানিয়ে দেন।
বিনামূল্যে চাল দেওয়ার প্রসঙ্গে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, মুখ্যমন্ত্রী কথা রাখলেও কথা রাখেননি প্রধানমন্ত্রী। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী র‌্যাশনে বিনামূল্যে চাল দেওয়ার ব্যবস্থা করলেও কেন্দ্র ডাল দেওয়ার কথা দিয়েও এখনও সেই ডাল দেয়নি।
র‌্যাশন বণ্টন নিয়েও এদিন খাদ্যমন্ত্রী জেলাশাসক বিজয় ভারতীর সঙ্গে বৈঠক করেন। সেই বৈঠকে রাজ্যের অপর মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ, জেলা পরিষদের  সভাধিপতি শম্পা ধারা সহ প্রশাসনিক কর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, পূর্ব বর্ধমান জেলার রাইস মিলগুলি থেকে ৩৬ হাজার মেট্রিক টন লেভির চাল বকেয়া রয়েছে। রাইস মিলগুলি যদিও জানিয়েছে তারা ওই বকেয়া চাল দ্রুত দিয়ে দেবে। প্রসঙ্গত, বাঁকুড়া, দুই ২৪ পরগনা, পুরুলিয়া সহ দক্ষিণবঙ্গের ছ’জেলায় পূর্ব বর্ধমান থেকে চাল সরবরাহ করা হয়।
এদিকে সরকারি সহায়ক মূল্যে ধান কেনার প্রসঙ্গে খাদ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, বোরো ধানের পাশাপাশি বাড়িতে মজুত থাকা খরিফ মরশুমের ধান আগামী ১৫ মে থেকে সরকার সহায়ক মূল্য কেনা শুরু করবে। অন্নধাত্রী পোর্টালের মাধ্যমে ওই ধান বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রশাসন কিনবে। খাদ্য দপ্তরের কর্মীদের পাশাপাশি জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরাও ধান কেনার বিষয়টি সরেজমিনে দেখবেন।