মাঝে মধ্যেই বন্ধ থাকছে খাদ্য ও সরবরাহ দপ্তর, সমস্যায় উপভোক্তারা

100

দীপঙ্কর মিত্র, রায়গঞ্জ: রায়গঞ্জ ব্লকের খাদ্য ও সরবরাহ দপ্তর মাঝে মধ্যেই বন্ধ থাকছে। যার ফলে শেরপুর, গৌরী, বিন্দোল, ভাটোল, জগদীশপুর, রায়গঞ্জ শহরের পাশাপাশি প্রত্যন্ত এলাকার প্রচুর উপভোক্তা দপ্তরে এসে ফিরে যাচ্ছেন। যদিও ব্লক প্রশাসনের দাবি, আদর্শ আচরণ বিধি লাগু হওয়ায় দপ্তরের আধিকারিকদের ফিল্ডে যেতে হচ্ছে। তাই দুই একদিন অসুবিধা হবে। শীঘ্রই সমস্যা মিটে যাবে।

সোমবার দুপুর ১.৩০ নাগাদ গিয়ে দেখা গেল, রায়গঞ্জ বিডিও অফিস প্রাঙ্গণে থাকা খাদ্য ও সরবরাহ দপ্তর বন্ধ। গ্রামগঞ্জ থেকে এসে উপভোক্তারা ফিরে যাচ্ছেন। কেউ নতুন র‍্যাশন কার্ডের জন্য, কেউ আবার কার্ড সংশোধনের জন্য দপ্তরে এসেছিলেন। তাঁদের অভিযোগ, প্রায়দিনই দপ্তর বন্ধ থাকে। যার ফলে দূর থেকে এসে কাজ না করেই ফিরে যেতে হচ্ছে উপভোক্তাদের। উপভোক্তাদের একাংশের অভিযোগ, তিন-চারদিন ধরে তাঁরা র‍্যাশন কার্ড সংশোধনের জন্য ঘুরছেন। কিন্তু কোনও কাজ হচ্ছে না।

- Advertisement -

এদিন নৃপেন বর্মন নামে ৬৮ বছরের এক বৃদ্ধ শেরপুর থেকে সাইকেল চালিয়ে র‍্যাশন কার্ড সংশোধনের জন্য খাদ্য ও সরবরাহ দপ্তরে এসেছিলেন। এসে দেখেন, অফিস বন্ধ। গৌরী গ্রাম থেকে এসেছিলেন সুশান্ত পাল। তিনি বলেন, ’প্রায়দিনই এসে ঘুরে যাচ্ছি। র‍্যাশন কার্ড নেওয়ার জন্য এদিন এসেছিলাম। এসে দেখি, অফিস বন্ধ।‘ রায়গঞ্জের রবীন্দ্রপল্লীর বিধান রায় বলেন, ‘অফিস বন্ধ থাকায় ঘুরে যাচ্ছি। বাচ্চাদের নতুন কার্ডের জন্য এসেছিলাম। এসে দেখছি, শহরের বাসিন্দাদের জন্য বৃহস্পতিবার তারিখ দিয়েছে। সেদিন ফের আসব।‘

এদিন দপ্তরের বাইরে দেখা গেল, নোটিশ দেওয়া হয়েছে। ব্লকের মানুষদের র‍্যাশন কার্ডের কাজের জন্য মঙ্গল ও শুক্র এবং পুর এলাকার বাসিন্দাদের বৃহস্পতিবার সময় দেওয়া হয়েছে। যদিও উপভোক্তাদের অভিযোগ, নির্দিষ্ট তারিখে এসেও অফিস বন্ধ দেখে ঘুরে যেতে হচ্ছে। রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির খাদ্য ও সরবরাহ দপ্তরের কর্মাধ্যক্ষ আলতাব হোসেন জানান, ভোটের ট্রেনিং থাকায় এদিন হয়তো দপ্তর তাড়াতাড়ি বন্ধ করে দিয়েছে। মঙ্গলবার থেকে যাতে নিয়মিত অফিস খোলে সে ব্যাপারে দপ্তরের আধিকারিককে জানাব।

যদিও ব্লক খাদ্য ও সরবরাহ দপ্তরের আধিকারিক হীরক ঘোষ জানান, তিনি দপ্তরের একমাত্র আধিকারিক। হীরকবাবু নির্বাচন সংক্রান্ত কাজে ব্যস্ত থাকায় এদিন দপ্তর বন্ধ ছিল। মঙ্গলবার থেকে ঠিক সময়ে দপ্তর খুলবে।