সোনাপুর : বুড়িতোর্ষার জলের তোড়ে নদীর উপর নির্মীয়মাণ একটি ফুটব্রিজের পিলার পুরোপুরি ভেঙে নদীগর্ভে তলিয়ে গিয়েছেষ ফলে নির্মাণ কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্থানীয়রা । বর্তমানে ওই ফুটব্রিজের নির্মাণকাজ বন্ধ রয়েছে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে । ব্রিজের পিলার তলিয়ে যাওয়ার পরও প্রশাসনের কোনো আধিকারিক এলাকা পরিদর্শনে যাননি বলে বাসিন্দাদের অভিযোগ। অবিলম্বে ব্রিজের নির্মাণ কাজ শুরু করার দাবি জানিয়েছেন তাঁরা ।

আলিপুরদুয়ার-১ ব্লকের দক্ষিণ চকোয়াখেতি গ্রামে বুড়িতোর্ষা নদীর ওপর ২৭ মিটার লম্বা ফুটব্রিজ তৈরির কাজ কয়েকমাস আগে শুরু  হয়েছিল । আলিপুরদুয়ারের প্রাক্তন সাংসদ দশরথ তিরকির এলাকা উন্নয়ন তহবিলের মোট ৩৬ লক্ষ টাকা আলিপুরদুয়ার-১ পঞ্চায়েত সমিতির অধীনে ফুটব্রিজ তৈরির সেই কাজ হচ্ছিল।  মাস তিনেক আগে জনপ্রতিনিধি এবং প্রশাসনের আধিকারিকরা ব্রিজটির নির্মাণকাজের শিলান্যায় করেছিলেন। বর্ষা শুরুর আগেই  ওই ব্রিজের মোট চারটি পিলার তৈরির কাজও প্রায় শেষ হয়েছিল।

সম্প্রতি টানা কয়েকদিনের বৃষ্টিতে নদীতে জল অনেকটাই বাড়লে জলস্রোতে একটি পিলার পুরোপুরি নদীগর্ভে তলিয়ে যায়। আরও একটি পিলার তলিয়ে যাওয়ার উপক্রম।  স্থানীয়রা জানান, দিনকয়েক আগে ওই পিলারটি বেঁকে গেলে ব্লকের ইঞ্জিনিয়ার সেটির পরিদর্শনে এসেছিলেন। কিন্তু এখন পিলারটি পুরোপুরি নদীগর্ভে তলিয়ে যাওয়ার পর প্রশাসনের কোনো আধিকারিক, এমনকি ওই ঠিকাদারি সংস্থার তরফে কেউ সেটি সরেজমিনে দেখতে আসেননি। নির্মাণকাজে গাফিলতির কারণেই পিলারটি নদীতে তলিয়ে গিয়েছে বলে মনে করেন তাঁরা ।

ওই ফুটব্রিজ নির্মাণকাজের সংশ্লিষ্ট বাস্তুকার দয়চাঁদ রাভা অবশ্য নির্মাণকাজে গাফিলতির অভিযোগ মানতে চাননি । তিনি বলেন, গ্রামবাসীদের উপস্থিতিতেই প্রয়োজনীয় নির্মাণ সামগ্রী সেখানে ব্যবহার করানো হয়েছে। বর্ষার মরশুম শেষ হলেই আবার সেখানে নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে। আলিপুরদুয়ার-১ ব্লকের বিডিও শ্রেয়সী ঘোষ বলেন, ‘বর্ষা শেষ হলেই ব্রিজ তৈরির কাজ সেখানে শুরু হবে ‌‌‌‌বলে জানি।’

 

ছবি- দক্ষিণ চকোয়াখেতি গ্রামে বুড়িতোর্ষা নদীতে ফুটব্রিজের পিলার তলিয়ে গিয়েছে ।

ছবি ও তথ্য : নয়ন রায়