নাইট কার্ফিউ উড়িয়ে ফুটবলের আসর মালদায়

200

মালদা : সংক্রমণ রুখতে চলছে নাইট কার্ফিউ। দোকানপাট বন্ধ করতে লাঠি উঁচিয়ে দৌড়োতে হচ্ছে পুলিশ কর্মীদের। আর ঠিক তখনই মাঠে চলছে ফুটবলের জমজমাট আসর। আন্তঃরাজ্য ফুটবল প্রতিযোগিতায় বিদেশি খেলোয়াড়দের দেখতে হাজার হাজার মানুষের ভিড় উপচে পড়ে পুরাতন মালদার একটি মাঠে। নাইট কার্ফিউ উড়িয়ে এভাবে ফুটবলের আয়োজনের অনুমতি যে ছিল না, তা মেনে নিয়েছে পুলিশ। এদিকে, পুরাতন মালদার পুর প্রশাসকও এমন আয়োজন ঠিক হয়নি বলে জানিয়েছেন। তবে তিনি নিজেও কেন খেলা দেখতে গিয়েছিলেন, সে প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গিয়েছেন।

করোনার তৃতীয় ঢেউ আটকাতে রাজ্যে এখন চূড়ান্ত সতর্কতা। একসঙ্গে ৫০ জনের বেশি জমায়েত করলে মহামারি আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে নির্দেশিকা জারি করেছে সরকার। জারি রয়েছে নাইট কার্ফিউও। তবে সব নির্দেশ উড়িয়ে পুরাতন মালদায় মঙ্গলবাড়ি ফুটবলপ্রেমী যুবকবৃন্দের উদ্যোগে স্থানীয় মঙ্গলবাড়ি মহানন্দা শক্তি সংঘের ময়দানে নৈশকালীন নকআউট ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছিল। টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন কলকাতা মহামেডান ক্লাবের তিনজন প্রাক্তন ফুটবলার। এছাড়াও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুরাতন মালদা পুরসভার প্রশাসক কার্তিক ঘোষ, প্রাক্তন পুরপ্রধান বিভূতিভষণ ঘোষ সহ ক্লাব সদস্যরা। ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয় রবিবার সন্ধ্যায়। এই ফুটবল খেলা দেখতে প্রথমদিনই মাঠে প্রচুর ফুটবলপ্রেমী মানুষের ভিড় হয়। তবে পুলিশ প্রশাসন বা পুরসভা থেকে উদ্যোক্তাদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। পুলিশের দাবি, কোনও অভিযোগ হয়নি। তবে এই পরিস্থিতিতে এমন আয়োজন না করলেই ভালো হত।

- Advertisement -

যুবক বৃন্দের সক্রিয় সদস্য তপন মজুমদার বলেন, প্রায় দুবছর ধরে চলা  লকডাউনে মানুষ খেলাধুলোর প্রতি বিমুখ হয়ে পড়েছে। তাই সেই উৎসাহ ফিরিয়ে আনার উদ্দেশ্যে আমাদের এই প্রয়াস। এপ্রসঙ্গে মালদা থানার আইসি হীরক বিশ্বাস বলেন, খেলার জন্য কোনও অনুমতি নেওয়া হয়নি। তবে বিষয়টি নিয়ে  কেউ কোনও অভিযোগ করেননি। একই বক্তব্য পুরাতন মালদা পুরসভার পুর প্রশাসক কার্তিক ঘোষেরও। তিনি নিজেও খেলার মাঠে হাজির ছিলেন। তাঁর বক্তব্য, এই খেলার জন্য পুরসভা থেকে কোনও অনুমতি নেওয়া হয়নি। অতিমারি পরিস্থিতিতে এই খেলা না করালেও চলত। তবে পুরসভা থেকে কেন কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি, সে বিষয়ে তিনি কোনও মন্তব্য করতে চাননি।