রাঘববোয়ালদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে বিপাকে পড়বে দল: রাজীব

373

কলকাতা: রাজ্যে ‌র‌্যাশন ও আমপানের ক্ষতিপূরণ বণ্টনকে ঘিরে বিভিন্ন এলাকায় যে দুর্নীতির অভিযোগ মাথাচাড়া দিয়েছে, তা নিয়ে চিন্তিত রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার কলকাতার একটি টিভি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাজীববাবু বলেন, বর্তমানে যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, তাতে শুধুমাত্র চুনোপুঁটিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলেই হবে না, দলের ভাবমূর্তি সঠিক রাখতে হলে রাঘববোয়ালদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে হবে। নচেৎ দলের বড় ক্ষতি হয়ে যাবে।

ওই সাক্ষাৎকারে রাজীববাবু জানিয়ে দেন, তিনি বিষয়টি দলের সর্বোচ্চ স্তরে জানিয়েছেন। তিনি আশা করেন, দলনেত্রী ওই বিষয়ে নিশ্চিতভাবে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবেন। তিনি আরও বলেন, দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জোরালো ভাষায় বারবার জানিয়ে দিয়েছেন, যারা দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন দলে তাঁদের স্থান হবে না। আর তাই তিনি মনে করেন, দলনেত্রী দুর্নীতিবাজ রাঘববোয়ালদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেবেন।

- Advertisement -

ডোমজুড়ে বিধায়ক রাজীববাবু রাজ্যের একজন মন্ত্রী ছাড়াও হাওড়ায় তৃণমূলের একজন কো-অর্ডিনেটর। ডোমজুড় কেন্দ্রটি আবার তৃণমূলের হাওড়া শহর জেলার অন্তর্গত। সেই জেলার সভাপতি হলেন রাজ্যের সমবায়মন্ত্রী অরূপ রায়। ওই জেলার যে দুই নেতার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে, তাঁরা দুজনেই মন্ত্রী অরূপ রায় এর ডানহাত বলে পরিচিত। সেই কারণেই কী তাঁদের বিরুদ্ধে দলের তরফে এখনও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি?, ওই ব্যাপারে করা একটি প্রশ্ন অবশ্য রাজীববাবু এড়িয়ে যান।

তবে ওই সাক্ষাৎকারের মধ্য দিয়ে প্রকাশ পায়, রাজীববাবু বর্তমানে যা চলছে তাতে ক্ষুব্ধ। সে কথাটি তিনি গোপন করেননি। উল্লেখ্য, আমপান ঝড়ের পরপরই সুন্দরবন এলাকায় পরিদর্শনে গিয়ে সেখানকার ভেঙে পড়া বাঁধগুলির অবস্থা দেখে ক্ষুব্ধ রাজীববাবু মন্তব্য করেছিলেন, তিনি রাজ্যের মন্ত্রী থাকার সময় যে বাঁধগুলি নির্মাণও মেরামতের নির্দেশ দিয়েছিলেন, সেগুলির কোনও কাজই হয়নি। সেইসঙ্গে আমপান বিধ্বস্ত এলাকার মানুষদের দুরবস্থা দেখে সেদিন তিনি তাঁর ক্ষোভ চেপে রাখতে পারেননি।