আফগানিস্তানে আটকে পাহাড়ের চার, উদ্বেগ বাড়ছে পরিবারে

286
এএফপি

শিলিগুড়ি: এই মুহুর্তে তালিবানের কবলে থাকা আফগানিস্তানে আটকে পড়েছেন পাহাড়ের ৪ বাসিন্দা। অশান্ত আফগানিস্তানের পরিস্থিতি দেখে আশঙ্কায় রাত কাটছে পাহাড়ের এই চার পরিবারের। গত জুলাই মাসে আফগানিস্তানে কাজের সূত্রে গিয়েছিলেন কার্সিয়াংয়ের বাসিন্দা শেখর গুরুং। সেখানেই বছর খানেক ধরে কাজ করছিলেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল তাঁর। কিন্তু কয়েকদিন ধরে শেখর গুরুংয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না পরিবারের সদস্যরা। ইতিমধ্যেই খবরে আফগানিস্তানে তালিবানি শাসন কায়েমের খবর জানতে পারে পরিবার। এতেই চিন্তা বেড়েছে।

কার্সিয়াংয়ের মন্টেভিট এলাকার বাসিন্দা সুনীল সুব্বাও দীর্ঘদিন ধরে কাবুলে একটি বেসরকারি সংস্থার অধীনে নিরাপত্তারক্ষীর কাজ করেন। সুনীল সুব্বার সঙ্গে গত সোমবার শেষ যোগাযোগ করতে পেরেছিল তাঁর পরিবার। তারপর থেকে সব যোগাযোগ ছিন্ন। একই পরিস্থিতি কার্সিয়াংয়ের বাসিন্দা জিতেন মোক্তানের। তিনিও সেখানে নিরাপত্তারক্ষীর কাজ করতেন। দার্জিলিংয়ের লেবংয়ের বাসিন্দা অমিত গুরুংও কাবুলে একটি বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত। তিনিও রাজনৈতিক অশান্তির জেরে সেখানে আটকে পড়েছেন বলে পরিবারের দাবি।

- Advertisement -

দার্জিলিং জেলা প্রশাসন ইতিমধ্যে জেলায় আটকে থাকা প্রত্যেকের তথ্য জোগাড় করতে শুরু করেছে। জেলা শাসক এস পন্নমবলম বলেন, ‘পাহাড়ের কয়েকজন বাসিন্দা আফগানিস্তানে আটকে রয়েছেন এমন খবর পেয়েছি। আমরা সমস্ত তথ্য জোগাড় করে পরিবারের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করছি।’ আফগানিস্তানের সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে উদ্বিগ্ন রাজ্য প্রশাসনও। নয়াদিল্লির সঙ্গেও এ বিষয়ে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। এ রাজ্যের বাসিন্দাদের খোঁজখবর নিয়ে তাঁদের নিরাপদে ফেরানোর জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নিতে প্রতিটি জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। মঙ্গলবারই সেই নির্দেশ পৌঁছেছে জেলা শাসকদের কাছে।