আগামী মরশুমের পরিকল্পনা নিয়ে ফিরলেন ফাওলার

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : ইতিমধ্যেই নাকি আগামী মরশুমের জন্য দলগঠন এবং অন্যান্য পরিকল্পনা শুরু করে দিয়েছেন রবি ফাওলার। তবে এই মরশুম নিয়ে প্রশ্ন করলে অবশ্য শুধুই হতাশা এবং ভারতীয় স্কোয়াডের উপর দোষারোপ ছাড়া তাঁর কাছ থেকে আর কিছুই পাওয়া যাচ্ছে না।

আইএসএলের ইতিহাসের সবথেকে বেশি গোলের (৫-৬) ম্যাচে হারের পর এদিনই বিদেশিরা একে একে চলে গেলেন গোয়ার শিবির ছেড়ে। দুপুরেই বেঙ্গালুরু হয়ে বাড়ির পথ ধরেন ব্রাইট এনুবাখারে। বেশি রাতের বিমানে মুম্বই হয়ে চলে যান কোচ রবি ফাওলারসহ পুরো কোচিং স্টাফ এবং ইংরেজ ফুটবলাররাও। কিছু ভারতীয় ফুটবলারও এদিন বাড়ির পথে রওনা হয়ে যান। তবে অনেকেই থেকে গিয়েছেন বিমানের টিকিট না পাওয়ায়। কলকাতার এবং উত্তর-পূর্ব ভারতের বেশিরভাগ ফুটবলারই ফিরছেন সোমবার রাতের দিকে।

- Advertisement -

গত ম্যাচের লজ্জার হারের পর ফাওলার এখনও নানা অজুহাত দিয়ে চললেও ভারতীয় ফুটবলারদের অবশ্য মাথা হেঁট। কারণ তাঁরা জানেন, লাল-হলুদ জার্সি পরে ৬ গোল খাওয়া কতটা লজ্জার। এক ফুটবলার বলছিলেন, আমরা এতদিন ধরে খেলছি। তবু বারবারই নানা কথা শুনতে হয়েছে। কিন্তু এটাও ঘটনা, ৬ গোল খাওয়ার পরে আমাদের যত যন্ত্রনা হচ্ছে, তেমনটা বাকিদের হচ্ছে বলে তো মনে হল না। তাঁর এই বক্তব্য থেকেই পরিষ্কার, দলের মধ্যে দেশি-বিদেশির মধ্যে কতটা দূরত্ব তৈরি হয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে পারফরমেন্সে।

তবে এতকিছুর পরেও সম্ভবত আগামী মরশুমে কোচ হিসাবে রবি ফাওলার থেকে যাচ্ছেন। চুক্তি হয়ে গিয়েছে টনি গ্রান্টের সঙ্গেও। বিদেশি ফুটবলারদের মধ্যে মাতি স্টেইনম্যানের সঙ্গে চুক্তি আগে থেকেই ছিল। এছাড়াও মৌখিক কথাবার্তা হয়েছে অ্যান্থনি পিলকিনটন ও জাঁক মাঘোমার সঙ্গে। ম্যানেজমেন্ট ব্রাইটকে রাখতে চাইলেও তাঁর দিকে হাত বাড়িয়েছে বেঙ্গালুরু এফসি। ফলে তিনি কোনও কথা না দিয়ে চলে গিয়েছেন।

ফাওলার তাঁর আগামী মরশুমের পরিকল্পনা নিয়ে বলছেন, আগামী মরশুমে কিভাবে আরও ভালো করা যায়, তার জন্য পরিকল্পনা আমরা ইতিমধ্যেই শুরু করে দিয়েছি। আমি আসার পর থেকেই যা যা করা দরকার সেসব কাজ করা হচ্ছে। এবার সময় পাওয়া যায়নি সেভাবে। কিন্তু ঠিকঠাক ফুটবলার নিয়ে সঠিক পদ্ধতিতে ট্রেনিং করলে ফল পাওয়া সম্ভব। আমরা সেভাবেই কাজ করছি। এই মরশুমের বেশিরভাগ ভারতীয়ই যে তাঁর বাতিলের তালিকায় পড়তে চলেছে, সেটা পরিষ্কার। কিন্তু এটাও ঘটনা ম্যানেজমেন্ট এখনও ভালো ভারতীয় ফুটবলার অন্য দল থেকে নেওয়ার ব্যাপারে বিশেষ কাজ এগোতে পারেনি।

এবারের লিগ সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে অবশ্য ফের সেই ঔদ্ধত্য দেখান তিনি। জানিয়ে দেন, তাঁর দলও নাকি প্রথম চারে থাকার লড়াইয়ে ছিল। ফাওলারের মন্তব্য, এবারের লিগটা এমন ছিল যেখানে যেকোনও দল প্রতিপক্ষকে হারাতে পারে। মাত্র পাঁচ ম্যাচ আগেই আমরা প্রথম চারে থাকার লড়াইয়ে ছিলাম। কিন্তু শেষটা হতাশাজনক হল। আসলে খানিকটা অমনযোগীতা এবং প্রায় সব ম্যাচেই দ্বিতীয়ার্ধটা খারাপ হওয়ার মাসুল দিতে হল। তাঁর মন্তব্যেই প্রমানিত, দলের এই কুৎসিত পারফরমেন্সের পরেও মুখে হারতে রাজি নন লিভারপুলের এই প্রাক্তনী। তবে আগামী মরশুমে কলকাতায় খেলা হলে এবং পারফরমেন্সগ্রাফ উর্দ্ধমুখী না হলে সমর্থকরা তাঁকে ছেড়ে কথা বলবেন কি না সন্দেহ।