চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, কাঠগড়ায় সরকারি কর্মী

109

হরিশ্চন্দ্রপুর: রাজ্য সরকারের কৃষি বিভাগে গ্রুপ ডি পদে চাকরি দেওয়ার নাম করে লক্ষাধিক টাকার প্রতারণার অভিযোগ উঠল কৃষি দপ্তরের কর্মীর বিরুদ্ধে। কৃষি দপ্তরে চাকরি দেওয়ার নাম করে হরিশ্চন্দ্রপুরের তুলসিহাটা গ্রামের যুবক যোগেশ দাসের থেকে প্রায় ৫ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা নেওয়া সহ তাঁকে ভুয়ো অ্যাপয়েন্টমেন্ট লেটার দেওয়া হয়। যোগেশ দাস তাঁর অভিযোগ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী, কৃষিমন্ত্রী সহ জেলার পুলিশ সুপারের দ্বারস্থ হয়েছেন।

যোগেশ দাস জানান, জেলা কৃষি দপ্তরের কর্মীর সঙ্গে তার এক আত্মীয়ের মাধ্যমে যোগেশ বাবুর পরিচয় হয়। সেখানে ওই কর্মীর মাধ্যমে তিনি টাকার বিনিময়ে কৃষি দপ্তরে গ্রুপ ডি পদে যোগদান করা প্রস্তাব পান। চাকরির আশ্বাস পেয়ে তিনি ওই ব্যক্তিকে ৫ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা দেন। কিন্তু ওই ব্যক্তির দেওয়া নিয়োগপত্র নিয়ে যখন তিনি দপ্তরে যোগদান করতে যান সেখানে জানিয়ে দেওয়া হয় ওই নিয়োগ পত্র ভুয়ো। তারপর সেই ব্যক্তির কাছে টাকা ফেরত চাইলে ওই ব্যক্তি জানান এখন কৃষি দপ্তরের গ্রুপ ডিতে হাইকোর্টের মামলা রয়েছে তাই তাকে বন দপ্তরে নিয়োগ দেওয়া হবে। কিন্তু সেক্ষেত্রে টালবাহনা দেখা গেলে বাধ্য হয়ে যোগেশ বাবু টাকা ফেরত চান। কিন্তু টাকা ফেরত দিতে অস্বীকার করায় যোগেশ বাবু প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছেন।

- Advertisement -

যোগেশ দাসের বাবা অতুল দাস জানান, সামান্য কয়েক বিঘা জমি ছিল তাদের। ছেলের ভবিষ্যত গড়ার জন্য তা বিক্রি করে এই টাকা ছেলের চাকরির জন্য দিয়েছিল অভিযুক্তকে। বর্তমানে চরম অসহায় অবস্থায় আছেন তাঁরা। অভিযুক্তের আইনজীবী সন্টু মিয়া বলেন, ‘নির্দিষ্ট জায়গায় আমরা অভিযোগ দায়ের করেছি। এরপরও যদি কোনও ব্যবস্থা না হয় তাহলে আদালতের দ্বারস্থ হবো।’ মালদা জেলা পুলিশ সুপার অলক রাজোরিয়া জানান, ওই ব্যক্তির অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আমরা এর পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করেছি। অভিযুক্তের সঙ্গে এনিয়ে কথা বলতে গেলে তিনি বাড়ি থেকে না বেরিয়ে তার পরিবারের সদস্যকে পাঠিয়ে দেন। সেই পরিবারের সদস্য সংবাদমাধ্যমের সামনে আসা তো দূরের কথা দরজা খুলতে রাজি হননি।