সরকারি বিধিনিষেধ মেনেই রাজ্যে হবে গঙ্গাসাগর মেলা

347

কলকাতা: করোনা আবহে সরকারি বিধিনিষেধ মেনেই রাজ্যে হবে গঙ্গাসাগর মেলা। এই মেলা নিয়ে আধিকারিকদের সঙ্গে নবান্নে বৈঠক করেন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রতি বছর লক্ষ লক্ষ পুণ্যার্থী আসেন গঙ্গাসাগর মেলায়। তবে এ বছর করোনা আবহে কিভাবে এই মেলা করা যায় তা নিয়ে সরকারি বৈঠকে উঠে এসেছে মোট ১৪টি বিষয়। ড্রেজিংয়ের কাজ যথাযথভাবে শুরু করতে হবে। লট ৮ থেকে কচুবেড়িয়ার মধ্যে চ্যানেল ১ ও চ্যানেল ৩ এই কাজ শেষ করতে হবে ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে। ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে চেমাগুড়ি থেকে বেণুবণের মধ্যে ড্রেজিং কাজ সম্পন্ন করা হবে। আমপান ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত গঙ্গাসাগর উপকূল তটের কাজ দ্রুত শেষ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -

এই বৈঠকে কোভিড ম্যানেজমেন্ট ব্যবস্থায় জোর দেওয়া হয়েছে। হাওড়া, শিয়ালদহ স্টেশনে যথাযথ স্ক্রিনিং ব্যবস্থা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। করতে হবে কোভিড টেস্টের ব্যবস্থা। সেফ হোম, কোয়ারান্টিন সেন্টার, আইসোলেশন ওয়ার্ড যথাযথ ব্যবস্থা রাখতে হবে। কোভিড কন্ট্রোল রুম থাকতে হবে। টোল ফ্রি নাম্বার রাখতে হবে। মাস্ক, স্যানিটাইজার সব ব্যবস্থা রাখতে হবে। ওয়াটার ও এয়ার অ্যাম্বুলেন্স ব্যবস্থা রাখতে হবে। গ্রিন করিডর ব্যবস্থা করতে হবে। মৃতদেহ সরানোর ব্যবস্থা করতে হবে। এছাড়া অগ্নিনির্বাপণ দপ্তরের কর্মীদের রাখতে হবে। বাস ও ভেসেলের সংখ্যা বাড়াতে হবে। আউট্রাম ঘাট থেকেই সেই সংখ্যা বাড়ানো হবে। সমস্ত জেটিতে বাফার জোন রাখতে হবে। পুলিশকে পর্যাপ্ত সিসিটিভি, ড্রোণ, কিউ আর টি’র ব্যবস্থা করতে হবে।

এছাড়াও পুণ্যার্থীদের যাতায়াতের ব্যবস্থা করার কথাও বলা হয়েছে। কলকাতা পুলিশ ও পুলিশ সুপারদের এই বিষয়ে যথাযথ পরিকল্পনা করতে হবে বলে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিদ্যুৎ, টেলিকমিউনিকেশন, রাস্তা ও জেটি সারানো নিয়ে যথাযথ আলোচনা হয়েছে। অনলাইনে মেলা দেখানোর ব্যবস্থাও রাখা হচ্ছে। দ্রুত এই কাজ সম্পন্ন করার জন্যে সমস্ত বিভাগকে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যসচিব।