থমকে সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্টের কাজ, যত্রতত্র জমছে জঞ্জাল

191

বীরপাড়া: ডাম্পিং গ্রাউন্ড ও সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট প্রকল্প তৈরির কাজ শুরুতেই থমকে গিয়েছে। তাই আলিপুরদুয়ার জেলার বীরপাড়ার অলিগলিতে জমছে আবর্জনার স্তূপ। আর এই আবর্জনার স্তূপ কমাতে কখনও গ্রাম পঞ্চায়েতের কর্মীরা কখনও আবার স্থানীয় বাসিন্দারাই আবর্জনায় আগুন লাগিয়ে দিচ্ছেন। লোকালয়েই পুড়ছে ছেঁড়া কাপড়চোপড়, প্লাস্টিকের ক্যারিব্যাগ, থার্মোকলের বাক্স এমনকি যানবাহনের চাকার টায়ার টিউবের মতো জিনিসও। জঞ্জালের স্তূপে আগুন লাগানোর ফলে সেই ধোঁয়া মিশে যাচ্ছে বাতাসে। এর জেরে এলাকাবাসীদের হাঁসফাঁস করতে হচ্ছে বলে অভিযোগ। যদিও সমস্যার কথা স্বীকার করেছেন বীরপাড়া ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান রমেশ মণ্ডল। ডাম্পিং গ্রাউন্ড তৈরির কাজ ফের শুরু করার অনুমতি চেয়ে তাঁরা প্রশাসনের অনুমতি চেয়েছেন বলে জানান রমেশবাবু।

বীরপাড়ার দিনবাজার, নয়া বাসস্ট্যান্ড সহ রবীন্দ্রনগর, দেবীগড়, শরৎ চ্যাটার্জি কলোনি, সারদাপল্লি, কলেজপাড়া, সুভাষপল্লি, শান্তিনগর কলোনি, ক্ষুদিরামপল্লি, নতুন বাসস্ট্যান্ড সহ প্রত্যেকটি এলাকায় আবর্জনার স্তূপ অন্যতম প্রধান সমস্যা বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। অথচ বীরপাড়ার আবর্জনা ফেলার জন্য নির্দিষ্ট কোনও জায়গা নেই। ফলে বাড়িঘরের আশপাশে এবং নিকাশি নালায় জমছে আবর্জনার স্তূপ। আবার কখনও কখনও বীরপাড়া ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের তরফে গাড়িতে আবর্জনা তুলে নিয়ে ফেলা হয় বীরপাড়া সংলগ্ন এশিয়ান হাইওয়ের পাশে এমনকি বিরবিটি ও সুকতি নদীর বুকেও। এছাড়া, অনেক সময় জঞ্জালের স্তূপে আগুন লাগিয়ে দিয়েও যে স্তূপের পরিমাণ কমানোর চেষ্টা করা হয়, তা অবশ্য স্বীকার করেছে বীরপাড়া ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ।

- Advertisement -

বীরপাড়ার বাসিন্দাদের অভিযোগ, একদিকে আবর্জনার স্তূপ থেকে দুর্গন্ধ ছড়ায়। তার ওপর সেখানে আগুন লাগিয়ে দেওয়ায় বীরপাড়ায় দূষণের মাত্রা আরও বেড়েছে। বীরপাড়ার বাতাসে সারাক্ষণই কটু পোড়া গন্ধ পাওয়া যায়। পোড়া আবর্জনার দূষিত ধোঁয়ায় হাঁসফাঁস করতে হচ্ছে বীরপাড়ার হাজার হাজার মানুষকে। বীরপাড়া ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান রমেশ মণ্ডল জানান, বিষয়টি নিয়ে মাদারিহাট বীরপাড়া ব্লক প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছে গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ। অনুমতি পেলে ফের কাজ শুরু করা হবে।