রাস্তার একাংশ জুড়ে আবর্জনার স্তূপ, ক্ষোভে কিষাণ মান্ডির ব্যবসায়ীরা

73

ময়নাগুড়ি: ময়নাগুড়ি নতুন বাজার কিষাণ মান্ডির ভেতরে রাস্তার একাংশ জুড়ে আবর্জনার স্তূপ জমা করা হয়েছে। ফেলে রাখা হয়েছে পরিত্যক্ত মাছের থার্মোকলের বাক্স এবং মাছ বাজারের বর্জ্য। দুর্গন্ধ আর দূষণ ছড়াচ্ছে। ব‍্যবসায়ী থেকে সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়েছে। স্থানীয়রা জানান, কিষাণ মান্ডি ঘিরে ঘন বসতি রয়েছে। তীব্র দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ছে। ব‍্যবসায়ীরা জানান, কর্তৃপক্ষের কাছে বারংবার জানিয়েও সুফল মিলছে না। এখানে মাছের পরিত্যক্ত থার্মোকলের বাক্স ও বর্জ্য ফেলে রাখা হয়। সে সব মারিয়েও বাজারের ভেতরে চলাফেরা করতে হয়। পাশে বসে দোকানদারি করা দুষ্কর। এভাবেই এখানে বসে ব‍্যবসা করতে হচ্ছে।

২০১৫ সালের ৪ নভেম্বর এই কিষাণ মান্ডির উদ্বোধন করা হয়। বর্তমানে এখানে প্রতিদিন সকালে পাইকারি মাছ ও সবজি বাজার বসে। এছাড়াও ভেতরে রয়েছে খুচরো সবজি এবং মাছ বাজার। নতুন বাজার পাইকারি মাছ ব‍্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক পরিমল দাস বলেন, আমরাও চাইছি মাছের এই থার্মোকলের বাক্স ব‍্যবহার বন্ধ করা হোক। সমিতির সভাপতি দুলাল অধিকারী বলেন, আগের মত প্লাস্টিকের বাক্সে মাছ আসুক তাহলেই এই সমস্যা মিটে যাবে। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে বেজায় ক্ষুব্ধ ময়নাগুড়ি পঞ্চায়েত সমিতির কৃষি কর্মাধ‍্যক্ষ বিমলেন্দু চৌধুরি। তিনি বলেন, দু’এক দিনের মধ্যেই এ বিষয়ে ওখানকার সকলের সঙ্গে কথাবার্তা বলব। নতুন বাজার ওয়েলফেয়ার ব‍্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক সিদ্ধার্থ সরকার বলেন, আমরা দ্রুত আবর্জনা সরিয়ে ফেলার ব‍্যবস্থা গ্রহণ করছি। আসলে এরজন্য প্রয়োজন ডাম্পিং গ্রাউন্ড।

- Advertisement -

স্থানীয় বাসিন্দা তথা তৃণমূল কংগ্রেসের পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য মিতু চক্রবর্তী বলেন, আবর্জনা একটি নির্দিষ্ট জায়গায় জমা করে আগুনে পুড়িয়ে ফেলার ব‍্যবস্থা করতে হবে। তবে সেক্ষেত্রে দায়িত্ব সহকারে কাজ শেষ করতে হবে। সকলের সঙ্গে কথা বলে ব‍্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ময়নাগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সজল বিশ্বাস বলেন, সলিড ওয়েস্ট ম‍্যানেজমেন্ট প্রকল্প গড়ে তোলার জন্য দক্ষিণ মৌয়ামারিতে জনৈক সহৃদয় ব‍্যক্তি জায়গা দেওয়ার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। সেই জায়গাটা প্রস্তাবিত পুর এলাকার বাইরে পড়ছে। তথাপি আমরা ওই জায়গা পরিদর্শন করছি দ্রুত। এছাড়াও প্রস্তাবিত পুর এলাকার মধ্যে পেটকাটি এলাকায় সরকারি জায়গা রয়েছে। প্রয়োজনে দুই জায়গাতেই সলিড ওয়েস্ট ম‍্যানেজমেন্ট প্রকল্প গড়ে তোলা হবে। তাহলেই এই সমস্যার সমাধান করা সম্ভব হবে। ময়নাগুড়ি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শিবম রায় বসুনিয়া বলেন, প্রত‍্যেকটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাতেই সলিড ওয়েস্ট ম‍্যানেজমেন্ট প্রকল্প গড়ে তোলার উদ‍্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এই প্রকল্প গড়ে না তুলতে পারলে এই সমস্যার সমাধান করা কোনও ভাবেই সম্ভব নয়।