বাণীব্রত চক্রবর্তী, ময়নাগুড়ি : নানা সমস্যায় জর্জরিত ময়নাগুড়ির নতুন বাজার কিষান মান্ডি। নিয়মিত সাফাই না হওয়ায় এলাকায় আবর্জনার স্তূপ জমছে। পাশাপাশি মান্ডির শৌচালয়ের পেছনে শুয়োরের অস্থায়ী খোঁয়াড় তৈরি করা হয়েছে। সেখানে মদের আসরও বসছে। বাজারে জমে থাকা আবর্জনায় শুয়োরের পাল ঘুরে বেড়ায়। দ্রুত এই সমস্যাগুলির সমাধান চেয়ে ব্যবসায়ীরা সরব হয়েছেন। মঙ্গলবার ময়নাগুড়ি পঞ্চায়ে সমিতির বিদ্যুৎ কর্মাধ্যক্ষ মিতু চক্রবর্তী বাজারে হানা দেন। এদিনও শৌচাগারের পিছনে কয়েকজন মদের আসর বসেছিল। কিন্তু মিতু চক্রবর্তী বাজারে হানা দিতেই তারা পালিয়ে য়ায়। এ প্রসঙ্গে মিতু চক্রবর্তী বলেন, আমি পুলিশের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলব। শুয়োর এবং আবর্জনার সমস্যার বিষয়টি ময়নাগুড়ি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতিকে নিয়ে এসে দেখাব। তারপর পদক্ষেপ করা হবে। অন্যদিকে, ময়নাগুড়ি থানার পুলিশ জানিয়েছে, এর আগেও এখানে অভিয়ান চালানো হয়েছে। ফের অভিযান চালানো হবে।

ময়নাগুড়ি নতুন বাজারে প্রতি মঙ্গলবার ও শুক্রবার সাপ্তাহিক হাট বসে। এছাড়া প্রতিদিন পাইকারি মাছবাজার, খুচরো সবজি, মাছ ও মাংসের বাজার বসে। কিষান মান্ডিতে পাইকারি ধানের ব্যবসা হয়। শৌচালয়ের সামনে পাইকারি মাছ ব্যবসায়ীরা ব্যবহৃত থার্মোকলের বাক্স ফেলে রাখেন। ব্যবসায়ীদের একাংশের অভিযোগ, নিষেধ করলেও সেখানে ব্যবহারের অযোগ্য থার্মোকলের বাক্স ফেলছেন কয়েক জন। এই বাক্সগুলিতে জল ও অন্য আবর্জনা জমে গোটা এলাকা দুর্গন্ধ আর দূষণে ভরে যাচ্ছে। এ প্রসঙ্গে পাইকারি মাছ ব্যবসায়ী নিখিল দাস বলেন, প্রশাসনের তরফে মাছ পরিবহণের জন্য থার্মোকলের বাক্সের বদলে প্লাস্টিকের বাক্স ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে। আমরা ব্যবসায়ীরা মিলে এই বিষয়ে আলোচনা করব। এ প্রসঙ্গে নতুন বাজার ওয়েফেয়ার ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক সিদ্ধার্থ সরকার বলেন, কিছুদিন আগেই আমরা ব্যবসায়ীরাই বেআইনি মদ বিক্রি ও মদের আসরের বিরুদ্ধে অভিয়ান চালিয়েছি। নতুন বাজারে মার্কেট কমপ্লেক্স নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে, এই কাজ মিটলে আমরা কিষান মান্ডিতে পাইকারি মাছবাজার রেখে বাকি নতুন বাজারে নিয়ে আসব। মাছ ব্যবসায়ীদের বলে দেওয়া হয়েছে থার্মোকলের বাক্সের পরিবর্তে প্লাস্টিকের বাক্স ব্যবহার করতে হবে। অন্যদিকে ময়নাগুড়ি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শিবম রায়বসুনিয়া বলেন, বাজারের ভেতর এভাবে কেন শুয়োর চরছে তা আমরা খোঁজ নিয়ে দেখব। মার্কেট কমপ্লেক্সের কাজ শেষ হয়ে গেলে সমস্যা অনেকটাই মিটে যাবে।