সাসপেন্ড করা হল তৃণমূলের শিক্ষক নেতাকে

551

রায়গঞ্জ, ২৭ সেপ্টেম্বরঃ সাসপেন্ড করা হল উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি তথা রায়গঞ্জ গার্লস প্রাথমিক স্কুলের টিচার ইনচার্জ গৌরাঙ্গ চৌহানকে। শুক্রবার গৌরাঙ্গ চৌহানকে সাসপেন্ড করার নির্দেশিকা জারি করে জেলা শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান তথা জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শক সুজিত মাইতি। বৃহস্পতিবারই সুজিত মাইতিকে হুমকি দেওয়া সহ একাধিক অভিযোগে শোকজ করা হয় গৌরাঙ্গ চৌহানকে। এদিন শোকজের উত্তর দেন গৌরাঙ্গবাবু। সেই উত্তরে সন্তুষ্ট না হওয়ায় এবং তাঁর শোকজের জবাব শিক্ষক সংগঠনের জেলা সভাপতি হিসেবে দিয়ে সার্ভিস রুল ভঙ্গ করায় এদিনই গৌরাঙ্গবাবুকে সাসপেন্ড করার নির্দেশিকা জারি করে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ। এই বিষয়ে শিক্ষক নেতা গৌরাঙ্গবাবু বলেন, ‘শোকজ ও সাসপেন্ড নিয়ম বহির্ভূতভাবে করা হয়েছে। যেসব অভিযোগ তোলা হয়েছে, তার কোনও প্রমাণ নেই। দুই শিক্ষককে বাড়ির কাছে বদলি করার আর্জি নিয়ে গিয়েছিলাম। তিনি করতে পারেননি। কিন্তু কোনোরকম বাজে ব্যবহার তাঁর সঙ্গে করা হয়নি। মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে আমাকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।’ এদিন রাতে মুখ্যমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীকে ইমেইল মারফত ডিআই (প্রাথমিক) সুজিত মাইতির বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে বলেও জানান গৌরাঙ্গবাবু। এদিকে সুজিত মাইতি বলেন, ‘ওই শিক্ষককে সাসপেন্ড করা হয়েছে। রাজ্যের শিক্ষা অধিকারিকদের জানানো হয়েছে।’ তবে শিক্ষাদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, দুই প্রাথমিক শিক্ষককে শহরের দুটি স্কুলে বদলি করার দাবি নিয়ে জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শকের কাছে গিয়েছিলেন গৌরাঙ্গ চৌহান। সেখান থেকেই যাবতীয় গণ্ডগোলের সূত্রপাত।