রায়গঞ্জ ১৪ অগাস্টঃ বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধরনায় বসল প্রেমিকা। ঘটনাটি ঘটে করণদিঘী থানার প্রেতকুড়া গ্রামে। মঙ্গলবার থেকে ধরনায় বসে প্রায় অসুস্থ হয়ে পড়ছেন রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী রীতা সিংহ। ঘটনাস্থলে রয়েছে স্বাস্থ্যকর্মীরা। স্যালাইন দিয়ে তাঁকে সুস্থ করার চেষ্টা করছে।
জানা গিয়েছে প্রেতকুড়া গ্ৰামেরই বাসিন্দা সদানন্দ পালের ছেলে বিপ্লব পালের সাথে ৮ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল রীতার। হঠাৎ করেই রীতার সঙ্গে বিপ্লব সম্পর্ক ভেঙে দেয়। এমনকী অন্য মেয়ের সঙ্গে বিয়ের কথাও ঠিক করে বিপ্লবের পরিবার। সেই বিয়ে কথা জানতে পেরেই প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধরনায় বসে রীতা। তরুণী এদিন দাবি করে, ‘বিপ্লব অনেকবার আমার সঙ্গে সহবাস করেছে। গ্রামের লোক সবাই জানে। যতক্ষণ না ও আমাকে বিয়ে করবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমি অনশন ও ধরনা চালিয়ে যাব’। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। তরুণীকে দেখতে ভিড় জমিয়েছে স্থানীয় বাসিন্দারা। গ্রামবাসীরা এদিন জানান, রীতার ভালোবাসা ফিরিয়ে দিতে হবে। তারা সকলেই রীতার পাশে রয়েছি। ঘটনার খবর পেয়ে বুধবার সেখানে যাযন করণদিঘি থানার পুলিশ। তরুণী বিপ্লবের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগও জমা দেন পুলিশকে। এদিন সন্ধ্যায় করণদিঘী থানার আইসি পরিমল সাহা বলেন, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসেছি। যদিও অভিযুক্ত যুবক ও বাড়ির লোক ফেরার’।