ছুটির দিনে ঘুরতে যাওয়ার ডেস্টিনেশন গেরিগাঁও

141

অনন্যা দে চট্টোপাধ্যায়, জয়গাঁ: ছুটির দিনে কাছেপিঠে ঘুরতে যাওয়ার ডেস্টিনেশন জয়গাঁর গেরিগাঁও। হালকা শীতের আমেজ ছড়িয়ে পড়তেই পিকনিক মুড অন সবার। গেরিগাঁওয়ে ঘুরতে এসেই মিলছে স্থানীয় বাসিন্দাদের হাতে তৈরি মোমো, চাউমিন, চা, কফির অনবদ্য স্বাদ।

- Advertisement -

করোনা পরিস্থিতির আগে জয়গাঁ ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকার মানুষদের ঘুরতে যাওয়ার স্থান ছিল ফুন্টশোলিং শহর, গুম্ফা। বর্তমানে ভুটানগেট বন্ধ থাকায় এই দুই স্থানে যেতে পারছেন না পর্যটকরা। তাই দুধের স্বাদ ঘোলে মেটাতে গেরিগাঁও ঘুরে আসাই এখন ভরসা পর্যটকদের। এখন গেরিগাঁও এলাকায় উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। গেরিগাঁও ভিউ পয়েন্টে দাঁড়ালে দেখা যায় একসঙ্গে ভারত-ভুটান পাহাড় ও তোর্ষার বয়ে চলার দৃশ্য। এই দৃশ্য বারবার দেখতেই চলে আসেন কাছেপিঠের পর্যটকরা। ভুটানগেট বন্ধ থাকায়, পর্যটকদের ভালোবাসার স্থান যে এখন গেরিগাঁও হয়েছে তা বলাই বাহুল্য। পাশাপাশি চলছে গেরিগাঁওয়ের অপরূপ দৃশ্যের সঙ্গে নিজস্বী নেওয়ার পালা। কেউ তুলছেন পাহাড়ের ফোটো, কেউ বা করছেন ছোট ভিডিও।

শীতের আমেজ পড়তেই ছোট ছোট পাহাড়ি ফুলে সেজেছে গেরিগাঁও ভিউপয়েন্ট। নাম না জানা এই ফুলগুলি নিঃসন্দেহে বাড়িয়েছে এই স্থানের সৌন্দর্য। পর্যটক স্মৃতি গুরুং, নুর ইসলাম জানান, জয়গাঁতেই যখন এত সুন্দর স্থান রয়েছে তখন ঘুরতে না এসে পারা যায়। নিজেরাতো এলেনই, বাড়িতে আসা অতিথিদেরও নিয়ে এসেছেন। সকলেই স্থানটি দেখে মুগ্ধ। এই স্থানের মনোরম হাওয়া জীবনে শান্তি এনে দেয়। পর্যটকদের আগমনে খুশি গেরিগাঁওয়ের ফাস্টফুড বিক্রেতা মদন লামা। তিনি জানান, এত পর্যটকদের দেখে মনে আশা জাগছে যে পিকনিকের মরশুমে ভালোই ব্যবসা হবে। এরজন্য তৈরি থাকতে হবে আগে থেকেই।