জার্মানিতে নগ্ন হয়ে প্রতিবাদ ডাক্তারদের

619

বার্লিন: বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস থাবা বসানোর পর থেকেই বিভিন্ন দেশের ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীরা পিপিই, মাস্ক সহ নানা সুরক্ষা সামগ্রীর ঘাটতির কারণে প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন। তবে জার্মানির একদল ডাক্তার অভিনব উপায়ে প্রতিবাদ জানালেন। নগ্ন হয়ে পিপিই-র ঘাটতির প্রতিবাদ জানালেন তাঁরা। করোনাভাইরাস আক্রান্তদের  চিকিত্সার কাজে ব্যবহৃত সুরক্ষা সামগ্রীর অভাবের প্রতিবাদে নগ্ন হয়ে বিক্ষোভ শামিল হলেন তাঁরা।

ওই ডাক্তাররা জানান, তাঁদের ঝুঁকি ও জীবন সংশয় বোঝাতেই নগ্নতাকে প্রতীক হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। তাঁরা এই প্রতিবাদের নাম দিয়েছেন ‘নগ্ন সংশয়’। প্রতিবাদী এই ডাক্তার দলের নেতৃত্বে থাকা রুবেন বারনাউ জানান, করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় তাঁদের ঠিকমত সুরক্ষা সামগ্রীর দেওয়া হচ্ছে না। তাঁর কথায়, ‘সুরক্ষা ছাড়া আমরা কতটা এই রোগের দ্বারা ঝুঁকিপূর্ণ, তা বোঝাতেই এই নগ্ন হওয়া।’

- Advertisement -

আরও পড়ুন: অসুস্থ হয়ে মুম্বইয়ের হাসপাতালে ভর্তি ইরফান

এই দলের একজন ডাক্তার জানিয়েছেন, তাঁরা তাঁদের কাজের প্রতি দায়বদ্ধ এবং তাঁরা রোগীদের চিকিত্সা বন্ধ করতে চান না। তাঁর কথায়, ‘করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিত্সার জন্য নিবিড় পরীক্ষা দরকার। সে কারণে আমাদের যথাযথ পিপিই দরকার।’

প্রতিবাদ জানাতে চিকিত্‍‌সার সময় ডাক্তাররা নগ্ন হয়ে কেউ ফাইলের পেছনে, কেউ টয়লেট রোলের পেছনে, কেউ আবার মেডিক্যাল জিনিসপত্র বা প্রেসক্রিপশনের পেছনে নিজেদেরকে ঢেকে রেখেছেন। জানুয়ারিতে জার্মানিতে করোনা থাবা বসানোর পর থেকে জার্মান ডাক্তাররা বহুবার পিপিই-র দাবিতে সরব হয়েছেন। তা সত্ত্বেও কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা না নেওয়াতেই তাঁরা এই প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন বলে জানান তাঁরা।

আরও পড়ুন: ব়্যাপিড টেস্টিং কিট নিয়ে ভারতকেই দুষছে চিন

একদিকে জার্মানির ফার্মগুলি যেমন প্রয়োজনমত পিপিই-র সরবরাহ করতে পারছে না, তেমনি জার্মানির একাধিক হাসপাতাল থেকে একাধিকবার পিপিই ও জীবাণুনাশক চুরির ঘটনাও সামনে এসেছে।