বাংলার মেয়েরা সবচেয়ে সুরক্ষিত, নারী দিবসে দাবি মমতার

109
ফাইল ছবি।

কলকাতা: রাজ্যের নারী সুরক্ষা নিয়ে রবিবাসরীয় ব্রিগেড থেকে তণমূলের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার ২৪ ঘণ্টা যেতে না যেতেই আন্তর্জাতিক নারী দিবসে পরিসংখ্যান তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রীকে নিশানা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সোমবার কলেজ স্ট্রিট থেকে ধর্মতলা ডোরিনা ক্রসিং পর্যন্ত তণমূলের মহিলা শাখা পদযাত্রা করে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন মমতাও। ওই পদযাত্রার শেষে ধর্মতলার মঞ্চ থেকে মমতা গুজরাট ও উত্তরপ্রদেশের নারী নির্যাতনের খতিয়ান তুলে ধরে বলেন, প্রধানমন্ত্রী বাংলায় এসে বাংলাকে অপমান করছেন। গুজরাট ও উত্তরপ্রদেশে রোজ ধর্ষণ, খুন লেগেই আছে। উত্তরপ্রদেশে ধর্ষিতার বাবাকে খুন করে দেওয়া হচ্ছে। বাংলায় মহিলারা সুরক্ষিত নয় তো কে সুরক্ষিত? এখানে মেয়েরা রাত ১০টাতেও নিশ্চিন্তে ঘুরে বেড়ায়। উত্তরপ্রদেশ বা গুজরাটে তা কি কল্পনা করা যায়?

- Advertisement -

এদিন বেলা ২টোর কিছু পরে কলেজ স্ট্রিট থেকে মমতার পদযাত্রা শুরু হয়। পদযাত্রাতে হাজির ছিলেন একঝাঁক তারকা। এবারের বিধানসভা ভোটেই তৃণমূলের টিকিট পেয়েছেন সায়নী ঘোষ, সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ চক্রবর্তীরা।

এদিনের মিছিলে সায়নী, অদিতি মুন্সি, সায়ন্তিকার পাশাপাশি হাজির ছিলেন টিকিট না পাওয়া সুদেষ্ণা রায়, রণিতা। নারী সুরক্ষা নিয়ে বিভিন্ন স্লোগান লেখা পোস্টার ঝোলানো ছিল মমতা সহ বাকিদের বুকে। প্রচণ্ড গরমেও পদযাত্রায় ব্যাপক ভিড় হয়েছিল। রাস্তার দুধারে উৎসাহী জনতা মমতাকে একবার দেখার জন্য কখনও কখনও নিরাপত্তা বেষ্টনী ভেঙে ঢুকে যাওয়ার চেষ্টা করে। নিরাপত্তারক্ষীদের নাকানিচোবানি খেতে হয়। রাস্তার দুধারে বাড়ির ছাদ, বারান্দায় মানুষ মমতাকে একবার দেখার জন্য ভিড় জমিয়েছিলেন। প্রচণ্ড গরমে দরদর করে ঘামছিলেন তৃণমূলনেত্রী। শাড়ির আঁচলে মুখ মুছে রীতিমতো ঝড়ের বেগে তিনি হেঁটে গিয়েছেন। তাঁর সঙ্গে তাল মেলাতে হিমসিম খেয়েছেন পুলিশ কর্তা থেকে শুরু করে সাংবাদিকরা। কয়েকজন তারকাও মমতার হাঁটার সঙ্গে তাল মেলাতে না পেরে বারবার পিছিয়ে পড়েন।

এদিন মমতা বলেন, রাজ্য সরকার বিনা পয়সায় চাল দিচ্ছে, আর ৯০০ টাকা দিয়ে গ্যাস কিনে তা রান্না করতে হচ্ছে। কেন্দ্রের সরকার গ্যাসের দাম আকাশছোঁয়া করেছে। আমরা দাবি করছি, কেন্দ্রের সরকার যদি গরিব দরদি হয়, তাহলে মানুষকে বিনামূল্যে রান্নার গ্যাস দিক। এরপরই ভিনরাজ্য থেকে আসা বিজেপি নেতাদের কটাক্ষ করে মমতা বলেন, রোজ এক ডজন করে নেতাকে এখানে পাঠাচ্ছে। ওরা ভাবছে বাংলা দখল করবে। আগে বিজেপি দিল্লি সামলাক। তারপর বাংলায় আসবে। মমতা বলেন, নরেন্দ্র মোদি বাংলায় এসে একের পর এক মিথ্যা ভাষণ দিয়ে যাচ্ছেন। অন্য রাজ্যের থেকে বাংলার মহিলারা অনেক সুরক্ষিত। বাংলার মেয়েরা আমাদের গর্ব। নারীদের অধিকার রক্ষা আমাদের দায়িত্ব। মেয়েদের সম্মান রক্ষা করা আমাদের কর্তব্য। আমরা আমাদের দায়িত্ব জানি। আমরা সেইমতো দায়িত্ব পালন করছি।

আসানসোল দক্ষিণের তৃণমূল প্রার্থী অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ বলেন, সারা ভারতে নারী সুরক্ষা ও নারীদের নিরাপত্তায় এই রাজ্য সবচেয়ে এগিয়ে অভিনেত্রী সুদেষ্ণা রায় বলেন, গত ৪ বছর মহিলা ও শিশুদের খুব কাছ থেকে দেখেছি। তাদের সঙ্গে কাজ করেছি। সেই সুবাদে বলতে পারি, এখানকার মেয়ে এবং শিশুরা অনেক বেশি সুরক্ষিত।