ফালাকাটা কৃষক বাজারে ফেলে দেওয়া সবজি কুড়োন গীতারা

সুভাষ বর্মন, ফালাকাটা : সবজির দাম কমার কোনও লক্ষণ নেই। আলু-পেঁয়াজের দামে নাভিশ্বাস সাধারণ মানুষের। দুঃস্থদের অবস্থা আরও খারাপ। এই পরিস্থিতিতে ভাতের সঙ্গে খাওয়ার জন্য সবজি জুটবে কীভাবে? তাই ফালাকাটা কৃষক বাজারে ব্যবসায়ীদের ফেলে দেওয়া খারাপ সবজিগুলি সংগ্রহ করে বাড়িতে রান্না করে খাচ্ছেন স্থানীয় একশ্রেণির দরিদ্র বাসিন্দা। বড়দের পাশাপাশি স্কুল পড়ুয়াদের একাংশও রোজ বাজারে এসে সবজি সংগ্রহ করছে। আবার কিছুটা ভালো মানের সবজি অন্য ছোট বাজারে গিয়ে বিক্রি করে দুটো পয়সা রোজগার করেন তাঁরা।

ফালাকাটা কৃষক বাজারে উত্তরবঙ্গের নানা জায়গা থেকে প্রতিদিন নানা রাজ্যের ব্যবসায়ীরা আসেন। কিন্তু বিক্রেতাদের পাশাপাশি আরেক শ্রেণির মানুষ কিছুটা পচা বা খারাপ সবজি সংগ্রহ করতে এই বাজারে নিয়মিত আসছেন। রোজ ভোর থেকে এই বাজার বসে। দুপুরের দিকে কয়েক ঘণ্টা বাজার ফাঁকা থাকলে ওই সবজি সংগ্রহকারীরা কৃষক বাজারে আসেন। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এ সবকিছুই পাইকারি দরে বিক্রি হয়। অনেক ক্ষেত্রে পণ্য প্যাকেজিং, লোডিং এবং আনলোডিংয়ে সময় খারাপ বা কিছুটা পচা সবজি বের হলে তা ফেলে দেন ব্যবসায়ীরা। বাজারদর বেশি হওয়ায় ফেলে দেওয়া সবজি সংগ্রহ করতে প্রায়ই কৃষক বাজারে হুড়োহুড়ি দেখা যায়।

- Advertisement -

বাজারের পাশে কাদম্বিনী চা বাগানের পাশাপাশি রাইচেঙ্গার দরিদ্র শ্রেণির কিছু মানুষ এভাবেই সবজি সংগ্রহ করেন। ব্যাগ, বস্তা নিয়ে বাজারে ঢুকে আদা, আলু, টমেটো, বাঁধাকপি, ফুলকপি, কাঁচালংকা, পেঁয়াজ থেকে শুরু করে অনেক কিছুই বস্তা ভরতি করে নিয়ে যান। এভাবে সবজি সংগ্রহের জন্য আসছেন কাদম্বিনী এলাকার গীতা বড়াইক, বাসু মাহালি, মিনি মুন্ডা। তাঁরা জানান, খুচরো বাজার থেকে এখন সবজি কেনা যায় না। এত দাম দিয়ে সবজি কেনার সামর্থ্য নেই। কিন্তু ভাতের সঙ্গে কিছু তো খেতে হবে। তাই এই কৃষক বাজারে এসে ফেলে দেওয়া সবজি সংগ্রহ করে বাড়ি নিয়ে যান তাঁরা।

বড়দের সঙ্গে স্কুল পড়ুয়াদেরও কেউ কেউ এই কাজে নেমে পড়েছে। স্কুল পড়ুয়া কুনি মুন্ডা এবং রহিত মুন্ডা জানায়, কয়েকমাস থেকে স্কুল বন্ধ। পড়াশোনাও সেভাবে হচ্ছে না। তাই কৃষক বাজারে এসে কিছু সবজি এভাবে সংগ্রহ করছে তারা। কেউ আবার বাড়ির গবাদিপশুর জন্যও নষ্ট সবজি সংগ্রহ করতে আসছেন। রাইচেঙ্গার অবনী দাস বলেন, এভাবে সবজি সংগ্রহ করার পর বেশি নষ্ট সবজিগুলি বাড়ির গবাদিপশুকে খাওয়াব। দাম বেশি থাকায় বাজার থেকে এখন সবজি কেনা মুশকিল। তাই যে সবজিগুলো নষ্ট হয়নি সেগুলি নিজেরা রান্না করে খাব।