শাস্তি হিসেবে মেয়েদের কোচিংয়ে নির্দেশে বিতর্ক

বার্লিন : মহিলা ম্যাচ অফিশিয়ালের বিরুদ্ধে অশালীন মন্তব্য করার শাস্তি হিসেবে মেয়েদের ফুটবল দলকে কোচিং করানোর নির্দেশ। স্থানীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের এমন নির্দেশের জেরে বিতর্ক তৈরি হয়েছে জার্মানিতে।

সম্প্রতি জার্মানির বিখ্যাত দল বরুশিয়া মঞ্চেনগ্ল্যাডবাখের অনূর্ধ্ব-২৩ দলের কোচ হিকো ভোগেল নারীবিদ্বেষী মন্তব্য করেন। ম্যাচে সিদ্ধান্ত বিপক্ষে যাওয়ায় মহিলা ম্যাচ অফিশিয়ালকে তিনি বলেন, ফুটবল মাঠে মেয়েদের কোনও স্থান নেই। এরপরই বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। ঘরে-বাইরে চাপের মুখে ভোগেল প্রকাশ্যে ক্ষমাও চান। তিনি বলেন, আমি কখনোই মেয়েদের ছোট করতে চাইনি। একটি সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্ষোভের জেরে ওই কথা বলেছিলাম।

- Advertisement -

সম্প্রতি পশ্চিম জার্মানির ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের ক্রীড়া আদালতে ভোগেলের মন্তব্য নিয়ে শুনানি হয়। সেখানে তাঁকে দেড় হাজার ইউরো জরিমানা করার পাশাপাশি দুম্যাচ নির্বাসিত করা হয়। পাশাপাশি বিচারক নির্দেশ দিয়েছেন, মহিলা ফুটবল দলকে প্রশিক্ষণ দিতে হবে ভোগেলকে। ৩০ জুনের মধ্যে অন্তত ৬টি ট্রেনিং সেশনে মহিলা ফুটবলারদের কোচিং করাতে হবে। এই শাস্তি নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে।

ভোগেলের এই শাস্তিতে ক্ষুব্ধ জার্মানির মহিলা ফুটবলাররা। সম্প্রতি প্রথম দুই ডিভিশনের মহিলা ফুটবলাররা বিষয়টি নিয়ে এক বার্তায় জানান, মেয়েদের অনুশীলন করানো কীভাবে শাস্তি হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে, তা আমরা বুঝতে পারছি না। এটা সমস্ত মহিলা ফুটবলারের জন্য অসম্মানের। এমনকি জার্মানির মহিলা ফুটবল দলের অধিনায়ক আলেকজান্দ্রা পোপ সোশ্যাল মিডিয়ায় বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। এরপরই বিষয়টি নিয়ে ফের সভা ডাকা হয়।

তবে ভোগেলের দাবি, তিনিই এই প্রস্তাব দিয়েছেন। যদিও শাস্তি কমানোর জন্য নয়, তিনি যে নিজের বক্তব্যের জন্য অনুতপ্ত তা বোঝাতেই এই প্রস্তাব দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমার কাছে বিষয়টি শাস্তিমূলক নয়। আমি সত্যি অনুতপ্ত। সেদিন যা বলেছি তা আমার বিশ্বাসের পরিপন্থি। মেয়েদের কোচিং করিয়ে আমি সেটাই বোঝাতে চাইছি। ইতিমধ্যেই ভোগেলকে পৃথকভাবে শাস্তি দিয়েছে তাঁর ক্লাব।