ছাগল আত্মসাৎ! ক্ষোভের মুখে জনপ্রতিনিধিরা

527

হেমতাবাদ: ছাগল বিলিতে স্বজন-পোষণের অভিযোগ। বিতর্কের মুখে শাসকদলের জনপ্রতিনিধিরা। অভিযোগ, পঞ্চায়েত সমিতির তরফে দুস্থদের মধ্যে ছাগলগুলি বিলির কথা থাকলেও আত্মীয় পরিজনের নামে সিংহভাগ ছাগল নিয়ে চলে গিয়েছেন জনপ্রতিনিধিরা। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা হেমতাবাদের প্রাণী সম্পদ বিকাশ বিভাগের আধিকারিকদের ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখালেন। স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের অভিযোগ, জনপ্রতিনিধিরা নিজেদের পকেট ভরতেই ব্যস্ত। স্বনির্ভর গোষ্ঠীর তরফে এহেন অভিযোগ মাথাচারা গিয়ে উঠতেই এদিন সন্ধ্যে থেকেই জোর প্রচারে নেমেছেন বিরোধী দলের নেতারা। রাজনৈতিক মহলের অনুমান, ছাগল বিলিতে স্বজন-পোষণের জেরে বিধানসভা নির্বাচনে জোর ধাক্কা খেতে চলেছে শাসকদল।

স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্যা তথা তৃণমূল নেত্রী পবিত্রারাণী বারুই বলেন, ‘দক্ষিণ হেমতাবাদের স্বনির্ভর গোষ্ঠী ২০ বছর আগে গঠিত হয়। দীর্ঘ দুই বছর যাবৎ আমাদের গোষ্ঠীর ১০ জন মহিলাকে সরকারের দেওয়া হাঁস মুরগি ছাগল কোনও কিছুই দিচ্ছে না। সমস্ত কিছু লুঠপাট করছে পঞ্চায়েত ও পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যারা। আমাদের কোনও কিছু দেওয়া হয়না। খেটে মরব আমরা, আর আমাদের কিছু দেবে না তা কখনও হয়।‘ একই অভিযোগ করেন অপরএক স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্যা অঞ্জনা বিশ্বাস। যদিও পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি তথা তৃণমূল কংগ্রেসের হেমতাবাদ ব্লক সভাপতি শেখর রায় বলেন, ‘এসব অভিযোগ ভিত্তিহীন। এদিন ৮৪টি ছাগল বিলি করা হয় চারটি স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মধ্যে।‘

- Advertisement -