ওয়াশিংটন, ১৬ ফেব্রুয়ারিঃ গুগল ম্যাপের বিরুদ্ধে দ্বিচারিতার অভিযোগ উঠল। ভারত থেকে গুগল ম্যাপ খুললে কাশ্মীরকে ভারতের অংশ দেখালেও ভারতের বাইরের দেশগুলিতে কাশ্মীরকে ‘বিতর্কিত ভূখণ্ড’ বলে উল্লেখ করেছে গুগল ম্যাপ। গুগল ম্যাপের এই দুই নীতির বিষয়টি প্রকাশ্যে আনে ওয়াশিংটন পোস্ট। ওই মার্কিন দৈনিকে বলা হয়েছে, ভারতে বসে গুগলের অনলাইন ম্যাপ দেখলে কাশ্মীরকে ভারতের অংশ হিসেবেই দেখা যাবে। কিন্তু ভারতের বাইরের ব্যবহারকারীরা কাশ্মীরকে গুগল ম্যাপে বিতর্কিত ভূখণ্ড হিসেবে দেখবেন। পাকিস্তান থেকে কাশ্মীর বিতর্কিত ভূখণ্ড, অথচ ভারতে বসে কাশ্মীর ভারতেরই অংশ। কোন দেশে বসে আপনি সার্চ করছেন, তার উপর নির্ভর করে গুগল ম্যাপ বিতর্কিত সীমান্ত বদলে দেয়।

তবে বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক শুরু হতেই পালটা সাফাই দিয়েছে গুগল। সংস্থার এক মুখপাত্রের কথায়,  ‘আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে যে এলাকা বিতর্কিত, সেটিকে বিতর্কিত হিসেবে তুলে ধরাই গুগলের নীতি। সেই ভূখণ্ড নিয়ে কোনও দেশের দাবিকেই সমর্থন করে না গুগল। যে দেশ ওই ভূখণ্ডকে যে ভাবে ব্যাখ্যা করে, সে দেশের আইন অনুযায়ী গুগল ম্যাপ এলাকাটিকে সেভাবেই তুলে ধরে।’ গুগল মুখপাত্রের দাবি, কোনও এলাকার রাজনৈতিক-ভৌগোলিক পরিস্থিতির গুরুত্ব অনুযায়ী যথাযথ এবং সর্বশেষ তথ্য ব্যবহারকারীদের দিতে গুগল বদ্ধপরিকর। ২০১৪ সালে তেলেঙ্গানার ক্ষেত্রেও তারা একই নিয়ম অনুসরণ করেছিল বলে দাবি। ওয়াশিংটন পোস্টের মতে, শুধু ভারত পাকিস্তান নয়, আর্জেন্টিনা, ব্রিটেন, ইরানের বিভিন্ন বিতর্কিত ভূখণ্ডের ক্ষেত্রেও একই ধরনের দ্বিচারিতা করে গুগল ম্যাপ। তবে এই নিয়ে ভারতের তরফে এখনও কোনো প্রতিক্রিয়া দেওয়া হয়নি।