রাজ্যের নির্দেশিকা মেনে পথে সরকারি বাস, একাধিক জেলায় দেখা মেলেনি বেসরকারি বাসের

133

পোর্টাল ডেস্ক: সংক্রমণ মোকাবিলায় এক মাসের বেশি সময় যাবৎ কার্যত লকডাউন জারি রাজ্যে। এই পরিস্থিতিতে বিধিনিষেধের গেঁড়োয় বন্ধ ছিল সবধরণের গণ পরিবহণ। এর মধ্যেই পাল্লা দিয়ে বেড়েছে পেট্রল-ডিজেলের মূল্যও। অন্যদিকে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হতেই, রাজ্যের তরফে ঘোষণা করা হয় ১ লা জুলাই থেকে স্বাভাবিকের পথে হাঁটবে বাস পরিষেবা। তবে, সংক্রমণ মোকাবিলায় ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে চলবে বাস। ঘোষণা অনুসারে রাজ্যজুড়ে সরকারি বাস রাস্তায় নামলেও একাধিক জায়গায় দেখা মেলেনি বেসরকারি বাসের।

অর্ধেক সংখ্যক যাত্রী নিয়ে সরকারি ও বেসরকারি বাস চলাচলের অনুমতি দিয়েছে রাজ্য সরকার। কিন্তু প্রতিদিনই যেভাবে ডিজেল পেট্রোলের দাম বেড়ে চলেছে, তাতে ভাড়া না বাড়িয়ে ওই বাস চালাতে আগ্রহী নয় বালুরঘাটের মালিকপক্ষ। একই চিত্র দেখা গেল জলপাইগুড়িতেও। এদিন জলপাইগুড়ি ডুয়ার্স মিনিবাস ওনার্স এসোশিয়েশনের তরফেও জানানো হয়েছে, ভাড়া বৃদ্ধি না করলে বাস চালানো সম্ভব নয়। এমনিতেই ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে চালাতে হবে বাস। তারমধ্যে ভাড়া একই থাকলে তেলের দামও উঠবে না বলে আশঙ্কা করছে মালিকপক্ষ। যদিও বুনিয়াদপুরে একাধিক বেসরকারি বাস চলাচল করতে দেখা যায় এদিন। বর্ধিত ভাড়ায় কম যাত্রী নিয়েই উত্তর দিনাজপুরেও শুরু হল বেসরকারি বাস পরিষেবা। তবে এদিন বেসরকারি বাসের সংখ্যা ছিল কম। বাসের ভাড়াও নূন্যতম বৃদ্ধি করেছেন  বাসমালিকেরা। এদিন তারা সাফ জানিয়ে দেন, যে হারে জ্বালানী এবং টোলের দাম বেড়েছে তাতে ওই বর্ধিত ভাড়া না দিলে পরবর্তী দিনে বাস পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হবে। একই অবস্থা দেখা গেলো চাঁচলেও। এদিন মাত্র দুটি বেসরকারি বাস চলেছে অঈ এলাকায়। তবে মালিকপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে শুক্রবার থেকে আরও বেশি বাস চালানো হবে ওই এলাকায়। কিন্তু ভাড়া বৃদ্ধির কথাও এদিন জানিয়ে দেন তারা।

- Advertisement -