গ্রাম প্রধানকে মারধর করে শ্লীলতাহানির অভিযোগ পঞ্চায়েত সদস্যের বিরুদ্ধে

343

রায়গঞ্জ, ১৭ মার্চঃ পঞ্চায়েত সমিতির তৃণমূল কংগ্রেস সদস্যের বিরুদ্ধে গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ও তাঁর স্বামীকে মারধর করার অভিযোগ উঠল। ঘটনায় রাজনৈতিক মহলে ব্যপক উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। রায়গঞ্জ থানার গৌরী গ্রাম পঞ্চায়েতের শ্যামপুর এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, চলতি সপ্তাহের সোমবার গৌরী গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামী রাঙ্গু মন্ডলকে ওই তৃণমূল নেতা বেধড়ক মারধর করে। তারই প্রতিবাদে মঙ্গলবার গ্রাম পঞ্চায়েতের কার্যালয়ের ভেতরে তৃণমূলের ১৩ জন পঞ্চায়েত সদস্যকে নিয়ে প্রধান বৈঠকে বসেন। সেখানে সিদ্ধান্ত হয় অভিযুক্ত রেজাউল হককে পঞ্চায়েতে ঢুকতে দেওয়া হবে না। বৈঠক শেষে প্রধান প্রধানের স্বামী সহ পঞ্চায়েত সদস্যরা ক্যাম্পাস থেকে বেরোনোর সময় রেজাউল হক পথ আটকে বেধড়ক মারধর করে প্রধান এবং তাঁর স্বামীকে করে। এমনকি প্রধানের শাড়ি ছিঁড়ে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করা হয়েছে। খবর পেয়ে রায়গঞ্জ থানার আইসি সুরোজ থাপার নেতৃত্বে বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এরপরই অভিযুক্ত তৃণমূলের দাপুটে নেতা তথা পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য রেজাউল হক সহ ৩ জনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। তৃণমূলের জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগারওয়াল জানান, আইন আইনের পথে চলবে। এই ধরনের ঘটনা একেবারেই কাম্য নয়।