শ্বশুরবাড়ি থেকে উদ্ধার গৃহবধূর ঝুলন্ত দেহ, আটক স্বামী

189

আসানসোল: শ্বশুরবাড়ি থেকে উদ্ধার হল এক গৃহবধূর ঝুলন্ত দেহ। রবিবার ঘটনাটি ঘটেছে আসানসোলের জামুড়িয়া থানার বীরকুলটি গ্রামে। এদিন ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। গৃহবধূর বাবার বাড়ির তরফে জামুড়িয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে মৃতার স্বামীকে আটক করা হয়। তবে, ঘটনার পর থেকে শ্বশুরবাড়ির বাকি সদস্যরা পলাতক।

জানা গিয়েছে, মৃতার নাম অপর্ণা গরাই (৩২)। বারো বছর আগে সালানপুর গ্রামের অপর্ণা গরাইয়ের সঙ্গে বীরকুলটি গ্রামের কালিসাধন গরাইয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় অপর্ণার বাবার বাড়ি থেকে পণ বাবদ টাকা সহ অন্যান্য জিনিসপত্র দেওয়া হয়। তাঁদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। এদিন সকালে অপর্ণার দেহ ঝুলন্ত অবস্থায় ঘর থেকে উদ্ধার হয়। পরবর্তীতে থানায় খবর দেওয়া হলে জামুড়িয়া থানার পুলিশ এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে আসানসোল জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন।

- Advertisement -

মৃতার বাপের বাড়ির তরফে এদিন অভিযোগ করে জানানো হয়, শনিবার রাতে অপর্ণাকে তাঁর স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির লোকেরা শ্বাসরোধ করে খুন করে। পরে সেই দেহ ঘরের মধ্যে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলিয়ে দেয়।

মৃতার ভাই শ্যাম গরাই বলেন, ‘বিয়ের পর থেকেই স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকেরা দিদির উপর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করত। অত্যাচার করার পরে দিদিকে শ্বাসরোধ করে খুন করে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলিয়ে দিয়েছে। এদিন সকালে গ্রামের লোকেরা আমাদের ফোন করে দিদির দেহ উদ্ধার করার খবর দেন। পরে আমরা এসে দেখি শ্বশুর বাড়ির দরজায় তালা লাগানো।‘

পুলিশ জানায়, এই ঘটনায় একটি নির্দিষ্ট অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে মৃতার বাবার বাড়ির তরফে। স্বামীকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে। শ্বশুরবাড়ির বাকি সদস্যদের খোঁজ চলছে।