হাথরস কাণ্ড: আসানসোলে ধিক্কার মিছিল

285

আসানসোল: উত্তরপ্রদেশের হাথরসের দলিত তরুণীর নৃশংস হত্যার প্রতিবাদে পশ্চিম বর্ধমান জেলার আসানসোল শহর তথা শিল্পাঞ্চল জুড়ে শনিবার বিকেলে একাধিক ধিক্কার মিছিল ও সভা হয়। বিক্ষোভ মিছিলের পরে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের কুশপুতুলও দাহ করা হয়।

এদিন পশ্চিম বর্ধমান জেলা বাউড়ি সমাজের ডাকে বাল্মিকী সমাজ ও বিভিন্ন সংগঠনের প্রায় পাঁচ হাজার মহিলা ও পুরুষ “জাস্টিস ফর মনীষা বাল্মিকী” লেখা ব্যানার নিয়ে রাজপথে নেমে মিছিল করেন। আসানসোল আদালত চত্বরের ঘড়িমোড় থেকে শুরু করে বার্ণরোড, পুলিশ লাইন, ভগৎ সিং মোড়, জিটি রোড হয়ে বিএনআরে এসে সেই মিছিল শেষ হয়। মিছিলে যোগী আদিত্যনাথের কুশপুতুল দাহ করা হয়। দেখা যায়, মিছিলে থাকা মহিলারা সেই কুশপুতুলের উপরে নিজেদের পায়ের চটি খুলে খুলে মারছেন।

- Advertisement -

সংগঠনের জেলা সম্পাদক রাজবংশী বাউরি বলেন, উত্তরপ্রদেশে একের পর এক দলিত কন্যারা গণধর্ষিতা হচ্ছে ও খুন হচ্ছে। সেইসব ঘটনাকে চাপা দেওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ নেতৃত্বে পুলিশ ও প্রশাসন জোর করে দেহ তুলে নিয়ে গিয়ে মধ্যরাতে কেরোসিন ঢেলে জ্বালাচ্ছে দিচ্ছে। তাও আবার পরিবারকে না জানিয়ে। তারপর সেই পরিবারের সদস্যরা যাতে বাইরে না যেতে পারে, কারোর সঙ্গে কথা বলতে না পারে তারজন্য তাদের মোবাইল কেড়ে নেওয়া হয়েছে। দরজা বন্ধ করে পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে। বাচ্চার দুধ পর্যন্ত নিয়ে যেতে দেওয়া হয়নি। অনাহারে থাকছে তার পরিবার। এই অবস্থায় সেখানকার জেলাশাসক পরিবারকে হুমকি দিয়ে বলছেন, বাইরে যদি এসব প্রচার হয় তাহলে কিন্তু তার পরিণাম খারাপ হবে। সরকারের ঘোষিত কোন সাহায্য তারা আর পাবেন না।

এদিনই একই দাবিতে আসানসোল উত্তর বিধানসভা তৃণমূল কংগ্রেসের ডাকে আসানসোলে আরও দুটি মিছিল হয়। সেই মিছিলের নেতৃত্ব ছিলেন রাজ্যের আইন ও শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটক। আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভার গ্রামীণ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের ডাকে রানিগঞ্জের পুরাতন এগারায় উত্তরপ্রদেশের ঘটনার প্রতিবাদে ধিক্কার মিছিল হয়। সেই মিছিলে ছিলেন আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভার বিধায়ক তথা আসানসোল দুর্গাপুর উন্নয়ন পর্ষদ বা আড্ডার চেয়ারম্যান তাপস বন্দ্যোপাধ্যায়, আসানসোল পুরনিগমের চেয়ারম্যান অমরনাথ চট্টোপাধ্যায়, গ্রামীণ ব্লক সভাপতি দেবনারায়ন দাস, অঞ্চল সভাপতি আশিস বাউর প্রমুখ।