পিছিয়ে গেল নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি

159

কলকাতা: নন্দীগ্রাম কেন্দ্রের ভোটের ফলাফলকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামী বৃহস্পতিবার ওই মামলার শুনানি হবে বলে জানিয়ে দিল কলকাতা হাইকোর্ট। শুক্রবার মামলাকারীর তরফে আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করার কথা ছিল। সেইমতো সকালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তরফে আইনজীবী গোপাল মুখোপাধ্যায় বিচারপতি কৌশিক চন্দর দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি জানান, আগামী বৃহস্পতিবার এই মামলার পূর্ণাঙ্গ শুনানি করা হবে। সব পক্ষকে আদালতে উপস্থিত থাকার নির্দেশও দিয়েছেন বিচারপতি। হাইকোর্টের রেজিস্টারের কাছ থেকে বিচারপতি জানতে চান মামলাটি ঠিকঠাকমতো দাখিল করা হয়েছে কিনা। সে ব্যাপারে উত্তর পাওয়ার পর তিনি মামলাটি ধরেন।

এদিন বিচারপতি চন্দ পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দেন যে, নির্বাচন সংক্রান্ত মামলা শোনার ব্যাপারে কিছু বাধ্যবাধকতা আছে। ওই মামলা শোনার সময় মামলাকারীকে ব্যক্তিগতভাবে উপস্থিত থাকতে হয়। এরপরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পক্ষের আইনজীবী গোপাল মুখোপাধ্যায় জানান, বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে যেহেতু বহু মামলা ভার্চুয়ালি শুনানি হচ্ছে সেক্ষেত্রে এই মামলার মামলাকারী ভার্চুয়ালি আদালতে হাজির থাকতে পারবেন কি না, সে ব্যাপারে অবশ্য বিচারপতি প্রস্তাবটি মেনে নেন। অর্থাৎ আগামী বৃহস্পতিবার যেদিন ওই মামলার পুনরায় শুনানি হবে সেদিন মুখ্যমন্ত্রী ব্যক্তিগতভাবে আদালতে হাজির না হলেও তাঁকে ভার্চুয়ালি আদালতে হাজির থাকতে হবে।

- Advertisement -

গত ২ মে রাজ্য বিধানসভা ভোটের ফলাফল ঘোষণার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছিলেন, তাঁকে জোর করে পরিকল্পনা করে হারানো হয়েছে। কারণ গণনার একেবারে শেষ কয়েকটি দফায় কারচুপি না করা হলে তিনি বিধানসভা নির্বাচনে পরাজিত হতেন না। সেই কারনে তিনি সরাসরি মামলাটি করেছেন নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে।

উল্লেখ্য, এবারের বিধানসভা নির্বাচনে নন্দীগ্রাম কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিজেপির প্রার্থী ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী ও সিপিএমের প্রার্থী ছিলেন মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়। ভোটের ফলাফলের নিরিখে শেষ পর্যন্ত নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারী বিজয়ী হন ১৯০০ মতো ভোটে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সঙ্গে সঙ্গে পুনরায় গণনার দাবি জানিয়েছিলেন। কিন্তু সেই দাবি খারিজ করে দেন রিটার্নিং অফিসার। ওই দিনই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, তিনি এর বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হবেন।