টানা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত আসানসোল, মৃত শিশু

163

আসানসোল: বৃহস্পতিবার রাত থেকে ভারী বৃষ্টি শুরু হয়েছে আসানসোল সহ গোটা শিল্পাঞ্চলজুড়ে। শুক্রবারও বৃষ্টির পরিমাণ আরও বেড়েছে। আসানসোল পুরনিগম এলাকায় প্রবল বৃষ্টিতে একটি মাটির বাড়ি ভেঙে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। ওই একই জায়গায় আরও একটি মাটির বাড়ি ভেঙে দুই শিশু আহত হয়েছে।

এদিন সকালে আসানসোলের জিটি রোডের বড় বাজারে একটি পুরোনো বাড়ি ভেঙে পড়ে। সেই ঘটনায় দু’জন আহত হয়। পাশাপাশি দিলদার নগর, বার্নপুরের শাস্ত্রী নগর জলমগ্ন হয়ে পড়ে। পুরনিগমের ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে কেডি সিং কোলিয়ারির বোরিংপাড়া এলাকায় দুটি মাটির বাড়ি বৃষ্টির জেরে ভেঙে পড়ে। সেখানো দুটি বাড়ির তিন শিশু আহত হয়। তিন শিশুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে একজনের মৃত্যু হয়। এখনও পর্যন্ত আসানসোল শিল্পাঞ্চলে ৫০টিরও বেশি বাড়ি ভেঙে পড়েছে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে। একাধিক ব্রিজ ও রাস্তা জলের তলায় চলে যায়। ব্যাহত হয়েছে বিদ্যুৎ পরিষেবা। গতকাল রাত থেকে শুরু হওয়া ভারী বৃষ্টির কারণে শহরের নীচু অঞ্চল জলমগ্ন হয়ে পড়ে। কয়েক হাজার মানুষকে ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিতে হয়েছে।

- Advertisement -

এদিন সকালে আসানসোল পুরনিগমের জলমগ্ন হয়ে পড়া বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন পুর প্রশাসক অমরনাথ চট্টোপাধ্যায়। এদিকে, এদিন সকালে ডিভিসি সূত্রে জানানো হয়েছে, মাইথন থেকে ১২ হাজার, পাঞ্চেত থেকে ২২ হাজার ও দুর্গাপুর ব্যারেজ থেকে ৫১ হাজার ৮০০ কিউসেক জল ছাড়া হয়েছে। এখনও পর্যন্ত বৃষ্টি হয়েছে ৬০ মিলিমিটার। ডিভিসি জানিয়েছে, বৃষ্টির পরিমাণ বাড়লে জল ছাড়ার পরিমাণ বাড়ানো হবে। দুর্গাপুর ব্যারেজ থেকে জল ছাড়ায় পূর্ব বর্ধমান জেলার দামোদর তীরবর্তী এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে।