বিপজ্জনক উপেন বর্মন সেতু দিয়ে ভারী গাড়ি চলছে

446

বিশ্বজিৎ সাহা, মাথাভাঙ্গা : গতবছর দুর্গাপুজোর আগেই সেতুটিকে বিপজ্জনক ঘোষণা করা হয়েছিল। অথচ এ বছর দুর্গাপুজো চলে এলেও মাথাভাঙ্গা-শীতলকুচি সড়কে ধরলা নদীর ওপর উপেন বর্মন সেতু দিয়ে ভারী যান চলাচল রোধে হাইট রেস্ট্রিকশন বার লাগানো হয়নি পূর্ত বিভাগের পক্ষ থেকে বলে অভিযোগ। এর জেরে সেতুটি আরও বিপজ্জনক হয়ে পড়েছে। এই অবস্থায় সেতু দিয়ে নিয়মিত ভারী পণ্যবাহী ট্রেলার, ট্রাক, ডাম্পার চলাচল করছে। যদিও পূর্ত বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, খুব শীঘ্রই সেতুটির দুধারে হাইট রেস্ট্রিকশন বার লাগানো হবে। পাশাপাশি, বিপজ্জনক ওই সেতুর পাশে বিকল্প সেতু তৈরির উদ্যোগও শুরু হয়েছে।

সম্প্রতি উপেন বর্মন সেতু সংলগ্ন এলাকায় প্রস্তাবিত সেতু তৈরির স্থানটি যৌথভাবে পরিদর্শন করেন পূর্ত বিভাগ এবং ভূমি ও ভূমি সংস্কার বিভাগের আধিকারিকরা। পরিদর্শনের সময় প্রস্তাবিত সেতুটির ডিজাইনের দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থার কর্মীরাও সেখানে হাজির ছিলেন। পূর্ত বিভাগের মাথাভাঙ্গার অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার অরুণাভ দত্ত জানান, প্রস্তাবিত বিকল্প সেতু তৈরির জন্য ভূমি ও ভূমি সংস্কার বিভাগের জমির পর্চা সেতুটির ডিজাইনের দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থার কাছে পাঠানো হয়েছে। সার্ভের জন্য টেন্ডার কোটেশন ঝোলানো হয়েছে।

- Advertisement -

১৯ বছর আগে ২০০১ সালে উদ্বোধন হওয়া উপেন বর্মন সেতুটিতে সম্প্রতি ত্রুটি ধরা পড়ে। মোবাইল ব্রিজ ইনস্পেকশন ইউনিটের (এমবিআইইউ) পক্ষ থেকে উপর্যুপরি দুবার সেতুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার পর সেতুটি বিপজ্জনক ঘোষণা করেছে পূর্ত বিভাগ। পাশাপাশি ঝুঁকি এড়াতে সেতু দিয়ে যান চলাচলে রাশ টানার পরামর্শ দেয় বিশেষজ্ঞ সংস্থাটি। ফলে গতবছর দুর্গাপুজোর আগে থেকেই যানচালকদের সতর্ক করতে সেতুর দুধারে দুর্বল সেতুর সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। এদিকে, গুরুত্বপূর্ণ সেতুটি দুর্বল হয়ে পড়ার পর থেকে বিকল্প সেতুর চিন্তাভাবনা শুরু করে পূর্ত বিভাগ। সেতুটির পাশে সরকারি জমি রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখতে ভূমি ও ভূমি সংস্কার বিভাগকে চিঠি দেয় পূর্ত বিভাগ। তারপরই উপেন বর্মন সেতু সংলগ্ন সরকারি জমি পরিদর্শন ও জমি জরিপের কাজ শুরু করেন পূর্ত বিভাগের আধিকারিক ও কর্মীরা। পূর্ত বিভাগের মাথাভাঙ্গা অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পরিদর্শন করা হয়েছে। পরিদর্শনের রিপোর্ট, ভূমি ও ভূমি সংস্কার বিভাগের রিপোর্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে পাঠানো হয়েছে।