রাস্তায় সবজির দোকান বসায় যানজট হেলাপাকড়ি হাটে

366

উৎপল সেন, হেলাপাকড়ি: রাস্তার ওপর দোকান বসায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হল হেলাপাকড়ি হাটের চৌপথি মোড়ে। ফলে সমস্যায় পড়েছেন পথ চলতি মানুষ সহ হাটে আসা ক্রেতা-বিক্রেতারা।

রাস্তার ওপর দোকান বসায় সমস্যায় পড়তে হয় নিত্যযাত্রীদের। স্কুল খোলা থাকলে পড়ুয়াদেরও যানজটের সম্মুখীন হতে হয়। গতবছর এইনিয়ে উত্তরবঙ্গ সংবাদে খবর প্রকাশিত হয়েছিল। মেখলিগঞ্জ-ময়নাগুড়িগামী মূল পাকা রাস্তাটি হেলাপাকড়ি হাটকে দুইভাগে বিভক্ত করেছে। মঙ্গল ও শনিবার সাপ্তাহিক হাট বসে এখানে। কৃষকদের উৎপাদিত কৃষিপণ্য বিক্রির স্থায়ী জায়গা থাকলেও খুচরো বিক্রির জন্য হাটে আলাদা কোনও জায়গা নেই। তাই রাস্তার পাশেই বিক্রি করেন কৃষকরা। কিন্তু কৃষকের নাম করে পাইকাররাও সেখানে সবজির পসরা সাজাচ্ছেন বলে অভিযোগ। হাটের দিনগুলিতে রাস্তার দুইধারে প্রচুর সবজির দোকান বসে। একজন পাইকার একাধিক দোকান লাগাচ্ছেন বলেও অভিযোগ। সবজির দোকান বসায় মূল পাকা রাস্তাটি সংকোচিত হয়ে যানজটের সৃষ্টি হয়।

- Advertisement -

হাটে আসা গোপাল দাস, নরেন সেন, দিপু রায় প্রমুখ ক্রেতারা বলেন, এলাকার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা এটি। দিনরাত প্রচুর যানবাহন চলে এই রাস্তায়। মেখলিগঞ্জ ও চ্যাংড়াবান্ধা হাসপাতালের অ্যাম্বুলেন্সগুলিও এই রাস্তা দিয়েই চলাচল করে। কিন্তু হাটের দিন রাস্তা দখল করে সবজির দোকান বসায় ব্যাপক যানজট তৈরি হয়। অন্যদিকে দিগেন রায়, নিশীথ রায়, পরান সরকার, আবুল মহম্মদ, ভগত রায়, পইসঞ্জু রায় প্রমুখ সবজি বিক্রেতা বলেন, ‘কৃষকরা ছাড়াও শীতের সময় নতুন অনেক পাইকার গজিয়ে ওঠে। কৃষকদের কাছ থেকে সবজি কিনেই খুচরোভাবে বিক্রি করেন তাঁরা। কিন্তু বাজারে ঢোকার মুখেই খুচরো সবজি পাচ্ছেন ক্রেতারা। ফলে ক্রেতারা সবজি বাজারে ঢুকছেন না। এতে স্থায়ী সবজি বিক্রেতাদের ব্যবসায় মার খেতে হচ্ছে। কাজেই বাধ্য হয়ে ব্যবসায়ীদেরও অনেকে রাস্তার পাশে দোকান লাগাচ্ছেন।’

হেলাপাকড়ি ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক স্বপন সেন বলেন, ‘শীতের মরশুমে সবজির আমদানি বেশি হওয়ায় প্রতিবার একই সমস্যা দেখা দেয়। তবে সাময়িক সমস্যা হলেও আমদানি কমলে তা মিটে যায়। কৃষকদের জন্য খুচরো বিক্রির আলাদা জায়গা না থাকায় রাস্তার পাশে বসেন তাঁরা। তবে পাইকাদেরও রাস্তার পাশে দোকান লাগানোর অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি ব্যবসায়ী সমিতির তরফে তদন্ত করা হচ্ছে। মূল রাস্তায় যাতে যানজট না হয় সেদিকেও দেখা হচ্ছে। সমিতির তরফে ইতিমধ্যে রাস্তায় দোকান না লাগানোর জন্য সকলকে সতর্ক করা হয়েছে।’