চোপড়া হাটের নরকদশা, ক্ষোভ ব্যবসায়ীদের

130

চোপড়া: চোপড়া হাটের নরকদশা। মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। গত প্রায় দুইমাস ধরে থানা রোড এলাকার গুদরি বাজারে হাট ও নিয়মিত বাজার বসে। চোপড়া হাটের বর্তমান বেহাল অবস্থা নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছেন ব্যবসায়ীরা। নোংরা আবর্জনা, বেহাল নিকাশি ও শেডের নিচে জমা আবর্জনা থেকে দুর্গন্ধ ছড়ানোর কারণে হাটে ফেরার পরিবেশ নেই। তাছাড়া দীর্ঘদিন ধরে নানান সমস্যায় ধুঁকছে এই হাট, এমনটাই অভিযোগ ব্যবসায়ীদের।

হাটের জায়গায় আবর্জনা থেকে দুর্গন্ধ ছড়ানোর অভিযোগে স্থায়ী ব্যবসায়ী ও বাসিন্দারা ক্ষোভে ফুঁসছেন। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের উদাসীনতায় হাটের আবর্জনা পরিষ্কার না করায় সমস্যায় পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। চোপড়া গ্রাম পঞ্চায়েত সূত্রে জানা গিয়েছে, গতবারের মতো এবারও করোনা আবহের কারণে লকডাউনের বিধিনিষেধ শুরু হতেই ব্যবসায়ীরা গুদরি বাজারে দোকান পসার বসাতে শুরু করে।

- Advertisement -

হাটের স্থায়ী ব্যবসায়ী তথা মুদিখানার দোকান মালিক দিলীপ শেঠ বলেন, ‘গত প্রায় দুইমাস ধরে অন্যত্র হাট বসে। সোম-শুক্র হাটের দিন বাদেও এখানে দোকান বসত। বর্তমানে কারও দোকান বসে না।‘ গুদরি বাজারে পসরা পেতে বসা ব্যবসায়ীদের মধ্যে শিবু রায় ও আজির মহম্মদ বলেন, ‘একাংশ ব্যবসায়ী হাটে ফিরে যাওয়ার ব্যাপারে প্রস্তাব দিলেও অধিকাংশ ব্যবসায়ী ফিরতে চাইছেন না। কারণ হাটে নিকাশি ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে, ভারী বৃষ্টি হলে জল জমে থাকে।

চোপড়া গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান করন মার্ডি বলেন, ‘আপাতত গুদরি বাজারে হাট বসে। করোনা আবহের কারণে বিধিনিষেধ উঠলেই আগের জায়গাতে হাট ফেরানো হবে। শীঘ্রই আবর্জনা পরিষ্কার করে চোপড়া হাট সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।‘