করোনায় কাজ হারানো পরিবারের পাশে হেমতাবাদ ব্লক প্রশাসন

84

হেমতাবাদ: করোনা পরিস্থিতিতে কাজ নেই। এমতাবস্থায় পরিবারের সদস্যদের মুখে কিভাবে দুবেলা দুমুঠো ভাত তুলে দেবেন তা ভেবে কূল পাচ্ছেন না হেমতাবাদের প্রদীপ মণ্ডল। অন্যদিকে, হৃদরোগে আক্রান্ত মায়ের প্রয়োজনীয় ওষুধ পর্যন্ত কিনতে পারছে না। প্রদীপ ও তাঁর পরিবারের এমন অসহায় অবস্থার কথা জানতে পেরে তাঁদের পাশে দাঁড়ালেন হেমতাবাদ ব্লক প্রশাসন।

হেমতাবাদ ব্লকের পুরোনো বাসস্ট্যান্ডের পাশে একটা ত্রিপলের ছাউনিতে থাকেন প্রদীপ মণ্ডল(৩৭), তাঁর ভাই ধীরেন্দ্রনাথ মন্ডল(৩৪) ও তাঁদের বৃদ্ধা মা রেবতী মন্ডল(৬১)। দীর্ঘ লকডাউনে কর্মহীন অবস্থায় সংসার চালানো কঠিন হয়ে পড়েছে তাঁদের। দেশের বিভিন্ন জায়গায় ইলেক্ট্রিক ও ফলস সিলিংয়ের কাজ করতেন প্রদীপ। এছাড়াও সিভিল কনস্ট্রাকশন ও মার্কেটিংয়ের কাজও করতেন তিনি। তবে, বিগত এক বছর ধরে করোনার জেরে কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে বর্তমানে দুই ভাই সম্পূর্ণভাবে বেকার। দরিদ্র সহ্য করতে না পেরে মণ্ডল পরিবারের সকলেই আত্মহননের পথ বেছে নিতে চেয়েছিলেন। সেকথা প্রকাশ্যে আসতে সক্রিয় হয়েছে ব্লক প্রশাসন। এছাড়া স্থানীয় এক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্য সৌমেন দাস তাঁদের তিন মাসের সমস্ত ওষুধের খরচ দেওয়ার জন্য এগিয়ে এসেছেন। হেমতাবাদ যুব তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব ও ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির সদস্যরা প্রদীপের পরিবারে সঙ্গে দেখা করে সাহায্য তুলে দিয়ে পাশে থাকার আশ্বাস দেন।

- Advertisement -

বিডিও লক্ষ্মীকান্ত রায় জানান, খুব দ্রুত ওদের সমস্যা নিরাময় করা হবে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ও নগদ অর্থ তুলে দেওয়া হবে। পাশাপাশি আবাস যোজনায় ঘরের ব্যবস্থা এবং দুই ভাইকে ১০০ দিনের প্রকল্পে কাজ দেবার জন্য পঞ্চায়েতকে বলা হয়েছে।