সেদ্ধ ডিম খাচ্ছে তৃণভোজী রেড পান্ডারা

261

পূর্ণেন্দু সরকার, জলপাইগুড়ি :  তৃণভোজী রেড পান্ডাদের সেদ্ধ করা ডিম খাওয়ানো হচ্ছে। চিড়িয়াখানার ঘর থেকে বের করে এনক্লোজারে ছাড়ার আগে কোভিড সংক্রমণের ভয়ে ৪টি রেড পান্ডাকেই মানুষের সংস্পর্শে আনা হয়নি। আগামী ২৬ নভেম্বর রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় সিঙ্গালিলা জাতীয় উদ্যানের গৈরিবাসের এনক্লোজারে  রাম, শিফু, নুমা সহ মোট ৪টি রেড পান্ডাকে ছাড়বেন। এই রেড পান্ডাদের গলায় পরানো হচ্ছে সর্বাধুনিক রেডিও কলার। বন্যপ্রাণ বিভাগের উত্তরবঙ্গের মুখ্য বনপাল রাজেন্দ্র জাখর এই খবর দিয়েছেন। রেড পান্ডার সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে রেড পান্ডার বসবাসের এলাকা, বাঁশ গাছের বৃদ্ধি, জীবনযাত্রার ওপর গবেষণা করতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এই চারটি রেড পান্ডার মধ্যে দুটি স্ত্রী, দুটি পুরুষ প্রজাতির। আড়াই বছর থেকে ৫ বছর বয়স এদের। সিঙ্গালিলা জাতীয় উদ্যানের গৈরিবাসের ২,৫০০ ফুট উঁচুতে ১.৭ হেক্টর জমিতে এনক্লোজার করা হয়েছে। আপাতত ৩ মাস এই এনক্লোজারেই রাখা হবে রেড পান্ডাগুলিকে। তারপর তাদের সিঙ্গালিলার স্বাভাবিক জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হবে বিচরণের জন্য। সাম্প্রতিক কোভিড পরিস্থিতিতে দার্জিলিং পদ্মজা নাইডু চিড়িয়াখানায় এই চারটি রেড পান্ডাকে লালনপালন করার ক্ষেত্রে খাদ্যাভ্যাসে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। যেমন এদের কলা,আপেল ছাড়াও পুষ্টিকর খাবারের জন্য সেদ্ধ করা ডিম খাওয়ানো হয়েছে। তাছাড়া চিড়িয়াখানায় থাকাকালীন এই চার রেড পান্ডার কাছাকাছি কোনও কর্মীকে ঘেঁষতে দেওয়া হয়নি।

- Advertisement -

মুখ্য বনপাল আরও বলেন, আমরা রেড পান্ডার বসতি এবং সংখ্যার উন্নতির লক্ষ্যে প্রকল্প তৈরি করেছি। রেড পান্ডাদের জঙ্গলের স্বাভাবিক জীবনে কোনও সমস্যা হচ্ছে কি না, কী ধরনের সমস্যার মুখে তাদের পড়তে হচ্ছে, আর কী কী প্রয়োজন- সে সব খতিয়ে দেখা হবে। সে কারণেই  উন্নত স্যাটেলাইট ব্যবহার করার ছাড়পত্র কেন্দ্রীয় সরকার ও রাজ্যের কাছ থেকে নেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, এবারের রেডিও কলারের ট্রান্সমিটার অত্যন্ত উন্নত হবে। আমাদের খবরাখবর পেতে অনেক সুবিধা হবে। রেড পান্ডা ছাড়াও সিঙ্গালিলা জাতীয় উদ্যানের ভিতর অন্য বন্যজন্তু, জীববৈচিত্র‌্যের খবর পেতে সুবিধা হবে। সিঙ্গালিলা জাতীয় উদ্যানে ২০১২ সালের শুমারিতে রেড পান্ডার সংখ্যা ছিল ৩৮। যদিও ২০১৯ সালের শুমারির রিপোর্ট আজও আসেনি। বনমন্ত্রীর মহানন্দা অভয়ারণ্যেও কর্মসূচি রয়েছে। রাজ্য বন দপ্তরের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা উপস্থিত থাকবেন দুটি অনুষ্ঠানেই।