কোন ইভেন্টে নামবেন, জানেন না হিমা

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি : চোটের কারণে বেশ কিছুদিন ট্র‌্যাকের বাইরে থাকা স্প্রিন্টার হিমা দাসকে কোন ইভেন্টে নামাতে চায় ফেডারেশন, এই নিয়ে যে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছিল তা কিন্তু এখনও কাটছে না। অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে, ৪০০ মিটারে প্রাক্তন জুনিয়ার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন নিজে জানিয়েছেন, তাঁর এই বিষয়ে কোনও ধারণা নেই। এই নিয়ে কোচ গালিনা বুখারিনা অথবা ফেডারেশন কী বিবৃতি দিয়েছে, তাঁর জানা নেই। তবে এটুকু বলতে পারেন, তাঁরা তাঁকে যা করতে বলবে, শেষ অবধি তাই হবে।

তিনি শুধু মন দিয়ে অনুশীলন করে যাওয়া ছাড়া আর কিছু করতে পারেন না, বলছেন হিমা। বিদেশি কোচ গালিনার সঙ্গে হিমার যে গত বছর থেকেই একটা দূরত্ব তৈরি হয়েছে, সেটা অ্যাথলেটিক্স মহলে মোটামুটি সবার জানা। বিভিন্ন অজুহাতে হিমার বারবার শিবির ছেড়ে চলে যাওয়া মোটেই ভালোভাবে নেননি কোচ। এরপর তো হিমা চোটের কারণে ট্র‌্যাক থেকে ছিটকে যান, বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপেও শেষ মুহূর্তে তাঁর নাম প্রত্যাহার করে নেয় ফেডারেশন। তার ওপর গত মার্চ মাস থেকে করোনা ভাইরাসের কারণে সবকিছু বন্ধ থাকায় হিমা যে এখন কতটা ফিট তা বোঝার কোনও উপায় নেই। হিমা নিজেই বলেন, আমি শারীরিক সক্ষমতায় এখন কোন জায়গায় আছি তা কীভাবে বলব? সবকিছু তো বন্ধ, কোনও প্রতিয়োগিতাও নেই। নিজেকে বিচার করার কোনও সুযোগই তো নেই। লকডাউনের জেরে তো তিন মাস বাদে ঘর থেকে বের হলাম। কয়েকটা প্রতিযোগিতায় যোগ দিই, তারপর এই প্রশ্নগুলোর জবাব দিতে পারব।

- Advertisement -

তবে আজকাল ৪০০ মিটার ছেড়ে ২০০ মিটারেই বেশি দৌড়োচ্ছেন হিমা। গত বছর ইউরোপের বিভিন্ন মিটে পরপর সোনা জেতেন হিমা। কিন্তু তার মধ্যে চারটি ছিল ২০০ মিটারে এবং মাত্র একটি ৪০০ মিটারে। টোকিও অলিম্পিকের জন্য য়োগ্যতা অর্জন করতে গেলে হিমাকে দৌড়োতে হবে ন্যূনতম ২২.৮০ সেকেন্ডে। যা এখনও অবধি তিনি করে উঠতে পারেননি। যদিও তাঁর বিশ্বাস, অলিম্পিক একবছর পিছিয়ে যাওয়ায় তিনি শেষ অবধি টোকিওর টিকিট পেয়ে যাবেন। ২০১৮ জাকার্তা এশিয়ান গেমসে সবমিলিয়ে তিনটি পদক পেয়েছিলেন অসমের মেয়ে হিমা। তার মধ্যে দুটি ছিল রিলে সোনা ও একটি ৪০০ মিটারে রুপো। এখন আমি চোট কাটিয়ে উঠেছি, তাই আমি অলিম্পিক নিয়ে আশাবাদী, বলছেন হিমা।