ভয়াবহতা ল্যাম্বডা ভ্যারিয়্যান্টের, নতুন করে বাড়াচ্ছে উদ্বেগ

312
সংগৃহীত

পোর্টাল ডেস্ক : ডেল্টার পর এবার বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ বাড়াতে শুরু করেছে করোনা ভাইরাসের ল্যাম্বডা ভ্যারিয়্যান্ট। বর্তমানে পেরুর মৃত্যু মিছিলের পিছনে বড় হাত রয়েছে এই নয়া স্ট্রেনের।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা করোনার ডেল্টা স্ট্রেন থেকেও অধিক শক্তিশালী এই  নতুন স্ট্রেন। যা ইতিমধ্যেই বিশ্বের ৩০টিরও বেশি দেশে পা রেখেছে। আর তাতেই নতুন করে বাড়ছে উদ্বেগ।

- Advertisement -

গত একমাসে গোটা বিশ্বজুড়ে দুরন্ত গতিতে ছড়িয়েছে ল্যাম্বডা, এমনটাই জানাচ্ছেন ব্রিটেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রক। এই নিয়ে ব্রিটেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে ল্যাম্বডা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে টুইট করে বলা হয়, বিশ্বের মধ্যে করোনায় সর্বাধিক মৃত্যু হার রয়েছে পেরুতে। এই পেরুতেই জন্ম নিয়েছে নয়া মারণ স্ট্রেন ল্যাম্বডার। বর্তমানে যার ডালপালা ছড়িয়েছে ব্রিটেন পর্যন্তও।

এখনও পর্যন্ত ব্রিটেনে ৬ জন ল্যাম্বডায় আক্রান্ত করোনা রোগীর খোঁজ মিলেছে। আর তাতেই নতুন করে বাড়ছে উদ্বেগ। এদিকে মে থেকে জুন মাসের মধ্যে পেরুতে যত সংখ্যক করোনা কেসের খোঁজ মিলেছে তার ৮২ শতাংশ ল্যাম্বডা আক্রান্তের, এমনটাই জানাচ্ছে প্যান আমেরিকা হেলথ অর্গানাইজেশন।

অন্যদিকে ল্যাটিন আমেরিকার আর এক দেশ চিলিতেও ভয়াবহতা বাড়াচ্ছে এই ল্যাম্বডা। সেখানে ৩১% করোনা আক্রান্তের দেহে মিলেছে এই নয়া স্ট্রেন। পাশাপাশি কেসের সংখ্যা বাড়লেও এখনও ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ তালিকায় ল্যাম্বডাকে রাখেনি ব্রিটেন। উল্টে এখনও পর্যন্ত পরীক্ষামূলক স্ট্রেনের তালিকায় ল্যাম্বডাকে রেখেছে পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড । এই নয়া স্ট্রেনের সংক্রমণ ক্ষমতা নিয়েও চলছে জোরদার গবেষণা।