চাঁচল, ১৬ সেপ্টেম্বরঃ গৃহবধূকে কীটনাশক খাইয়ে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠল স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ওই গৃহবধূর নাম ইয়াসমিনা বিবি (২৫)। ঘটনার তদন্ত করছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ।

জানা গিয়েছে, সাত বছর আগে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার রশিদাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের মোল্লাবাড়ি এলাকার ইয়াসমিনা বিবির সঙ্গে বিয়ে হয় হরিশ্চন্দ্রপুর-১ এর কুশিদা গ্রাম পঞ্চায়েতের আজাদ আলি(৩৩)-র। পরিবারের সদস্যরা জানান, বিয়ের পর থেকেই অতিরিক্ত পণের দাবিতে ইয়াসমিনার ওপর বারবার চাপ সৃষ্টি করা হত। স্বামীর কথার অমান্য হলেই তাঁর ওপর অত্যাচার চলত। আর এতে আজাদের পরিবারের সদস্যরা প্রত্যক্ষভাবে মদত দিত বলে অভিযোগ। এইনিয়ে গৃহবধূর পরিবারের লোকেরা বেশ কয়েকবার গ্রামে সালিশি সভা করে। এরপরও কোনো লাভ হয়নি। রবিবার রাতে আজাদ ইয়াসমিনাকে বাবার বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে আসার কথা বলতে গেলে শুরু হয় মারধর। এরপরই আজাদ ইয়াসমিনাকে কীটনাশক খাইয়ে মেরে ফেলার ষড়যন্ত্র করে বলে অভিযোগ। রাতেই ইয়াসমিনার শ্বশুরবাড়ির লোকেরা ইয়াসমিনা কীটনাশক খেয়েছে বলে তাঁর বাবার বাড়িতে খবর দেয়। গৃহবধূকে চাঁচল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। খবর পেয়ে ইয়াসমিনার বাবার বাড়ির লোকেরা হাসপাতালে গেলে মেয়েকে মৃত অবস্থায় দেখেন। ইয়াসমিনার পরিবারের সদস্যদের এও অভিযোগ, তাঁর শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। খবর পেয়ে চাঁচল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠায়। ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির ৮ জনের বিরুদ্ধে হরিশ্চন্দ্রপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি সঞ্জয় কুমার দাস জানান, অভিযোগ পেয়েছি। খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। ঘটনার তদন্ত চলছে।