আবাসনের নিরাপত্তারক্ষীকে মারধর, ছিনতাই মোবাইল

111

রায়গঞ্জ: আবাসনের নিরাপত্তারক্ষীর মুখ বেঁধে বন্দুকের বাট দিয়ে মারধর। অভিযোগ, একদল দুষ্কৃতি জোর করে আবাসনে ঢুকতে সচেষ্ট হলে তাদের বাধা দেন ওই নিরাপত্তারক্ষী। এরপরেই তাঁকে মারধর করা হয়। ঘটনায় গুরুতর জখম হন ওই নিরাপত্তারক্ষী। তাঁকে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভর্তি করা হলেও শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে রেফার করা হয়। অন্যদিকে, এই ঘটনার প্রেক্ষিতে পুলিশে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, রায়গঞ্জ শহরে সুদর্শনপুর ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার ভোরে। অভিযোগ, আবাসন থেকে বার করে ওই নিরাপত্তারক্ষীকে টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। এরপর আবাসনের সামনে আবর্জনার স্তুপের মাঝে মুখ বেঁধে পিস্তলের বাট দিয়ে তাঁকে বেধড়ক মারধর করা হয়। নিরাপত্তারক্ষীর চিৎকার এবং একের পর এক গুলির আওয়াজে ওই আবাসনের আবাসিকেরা ছুটে আসতেই দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায় ঘটনাস্থল ছেড়ে।

- Advertisement -

আবাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, জখম নিরাপত্তারক্ষীর নাম বীরেন্দ্র শীল (৫৫) রায়গঞ্জ শহরের গোয়ালপাড়া এলাকার বাসিন্দা। আগে এটিএমের নিরাপত্তারক্ষী পদে কর্মরত ছিলেন তিনি। বছর পাঁচেক ধরে ওই আবাসনের নিরাপত্তারক্ষী পদে কর্মরত। জখমের স্ত্রী সবিতা শীল বলেন, ‘আমার স্বামী দীর্ঘ পাঁচ বছর যাবৎ ওই ফ্ল্যাটের নিরাপত্তারক্ষীর পদে কর্মরত। আমার স্বামীকে বেধরক মারধর করা হয়েছে। আমরা চাই উনার চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হোক। আমাদের সামর্থ্য নেই।’

 রায়গঞ্জ থানার পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনার তদন্ত করে দোষীদের গ্রেপ্তার করা হবে।